Dreamy Media BD

লেবুর উপকারিতা ও অপকারিতা

লেবুর উপকারিতা ও অপকারিতা

লেবুর উপকারিতা ও অপকারিতা

লেবু আমাদের দেশে পরিচিত একটি ফল। ভিটামিন-সি এর ভালো একটি উৎস হচ্ছে লেবু। লেবু পছন্দ করেন না এমন মানুষ খুব কম আছে। লেবু দিয়ে ভাত খাওয়া সহ আরও বিভিন্ন কাছে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।লেবু যেমন সহজলভ্য তেমনি এর গুণের শেষ নেই। 

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে লেবুর প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। লেবুর উপকারিতা ও অপকারিতা রয়েছে অনেক।  লেবুর সুগন্ধ যেমন মন ভালো করে দেয় তেমনি এর পুষ্টি গুণ দেহকে সজীব করে তোলে। ভিটামিন-সি, ফাইবার এবং তার সাথে সাথে আরও অনেক ভিটামিন, মিনারেলে সমৃদ্ধ এই ফলটি হলো লেবু। লেবু হজমের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ওজন কমানোর জন্য লেবু খুবই উপকারী।

 লেবুর পুষ্টিগুণ রোগ প্রতিরোধে এবং সুস্থতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করতে পারে। গ্রীষ্মকালে প্রচন্ড দাবদাহে এক গ্লাস লেবুর শরবত পান করলে তৃষ্ণা মেটার সাথে সাথে যেন মনটাও জুড়িয়ে যায়। এছাড়াও লেবুর আরও অনেক উপকারী গুণ রয়েছে যেগুলো আপনি হয়তো জানেন না। তাই আজকের আর্টিকেলটি লেবুর উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে আলোচনা করব। তাই চলুন দেরি না করে এখনই আর্টিকেল শুরু করা যাক:

লেবুর উপকারিতা

১) রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে

লেবুতে আছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি।ভিটামিন সি মানুষরে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে । এজন্য প্রতিদিন যদি অন্ততপক্ষে একটি করে লেবু খান। এর ফলে আপনাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেটাই বেড়ে যাবে। যার জন্য বিভিন্ন ভাইরাস জ্বর ও সংক্রমণের হাত থেকে সহজেই রক্ষা পাবেন ।এছাড়াও লেবুতে থাকা ভিটামিন সি উচ্চরক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।এমনকি স্ট্রোক হওয়ার ঝুঁকিও অনেকাংশে কমিয়ে দেয় ।

২) ক্যান্সার প্রতিরোধ করে

লেবুতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি থাকার পাশাপাশি রয়েছে ফ্লেভানয়েড  নামে একধরনের এন্টিঅক্সিডেন্ট। যা আমাদের শরীরে উৎপন্ন হওয়া ফ্রি রেডিক্যাল গুলোকে নিউট্রিলাইজ করে বাইরে বের করে দিয়ে শরীরের কোষ গুলোকে নষ্ট হওয়ার হাত থেকে বাঁচায়।যার ফলে ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি অনেকাংশে কমে যায়।এইকারণে নিয়মিত পরিমাণ মতো লেবু পানি পান করুন এতে আপনার শরীরে ক্যান্সার হওয়ার প্রবণতা অনেকটা কমে যাবে ।

৩) দেহে Ph এর  সমতা বজায় রাখে

আমাদের শরীরে অ্যাসিডেব় মাত্রা বেড়ে গেলে রোগব্যাধি হওয়ার সম্ভবনাও অনেক বেড়ে যায় ।যদিও লেবু অ্যাসিড প্রকৃতির তবে খাওয়ার পরে আমাদের শরীরে ক্ষারীয় প্রকৃতির আচরণ করে। এই কারণে শরীরে অ্যাসিডেব় মাত্রা বেড়ে গেলে লেবু খাওয়ার পরে এর ক্ষারীয় প্রকৃতির জন্যে অ্যাসিডেব় মাত্রাটা কমে গিয়ে অ্যাসিড ও ক্ষারের সমতা বজায় থাকে।যার ফলে শরীরে রোগব্যাধি হওয়ার সম্ভবনা অনেক কমে যায়।

৪) ব্যাথা উপসম করে

আমাদের শরীরের জয়েন্টএ জয়েন্টএ ইউরিক অ্যাসিডেব় মাত্রা বেড়ে যাওয়ার কারনে যে ব্যাথ্যা অনুভব হয় তার থেকে মুক্তি পাওয়ার একটি সহজ মাধ্যম হচ্ছে লেবু। কারণ লেবু খাওয়ার পরে, সেটা শরীরের মধ্যে ক্ষারের মতো আচরণ করে এবং জয়েন্ট গুলো থেকে ইউরিক অ্যাসিড কে প্রশমিত করে দেয় অর্থাৎ ইউরিক অ্যাসিড এর পরিমান কমিয়ে দিয়ে জয়েন্টের ব্যাথা কমায় । যাদের শরীরের জয়েন্টে জয়েন্টে ব্যাথা করে তারা নিয়মিত লেবু পানি পান করতে পারেন।

৫) হার্ট ও ব্রেন সুস্থ্য রাখে 

লেবুতে ভিটামিন সি এর পাশাপাশি, প্রচুর পরিমানে পটাসিয়াম খনিজ থাকে যা আপনার হার্ট ও ব্রেন কে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। এবং তাদের কার্জকারিতাকেও সঠিকভাবে চলতে সাহায্য করে ।

৬) এনিমিয়া বা রক্তাল্পতা রোধ করে 

লেবুতে পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন সি রয়েছে এর পাশাপাশি আছে অল্প পরিমাণে আয়রন । লেবুতে থাকা ভিটামিন সি আমাদের শরীরের অন্যান্য খাদ্য গুলো থেকে আয়রন শোষণ করে।আর এই শোষিত আয়রন ও লেবুতে থাকা আয়রন রক্তের লোহিত রক্তকণিকা তৈরিতে বেশ সাহায্য করে । ফলে আমাদের শরীরে রক্তের অভাব হয় না ।

৭) কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে 

 লেবুর মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমানে পেক্টিন তন্তু বা ফাইবার । পেক্টিন তন্তু  হজমশক্তি বাড়াতেও সাহায্য করে যা কোষ্টকাঠিন্য থেকে মুক্তি দেয় এবং কোলেস্টেরলের সমস্যা থেকেও মুক্তি দেয় ।

৮) কিডনি ভালো রাখে 

লেবুতে রয়েছে প্রচুর পরিমানে সাইট্রিক অ্যাসিড যা কিডনিতে পাথর তৈরী হতে বাধা দেয়।আর পাথর তৈরী হয়ে গেলেও সেটাকে ভেঙে দিয়ে মূত্রের মাধ্যমে শরীরের বাইরে বের করে দিতে সাহায্য করে।নিয়মিত লেবু খেলে কিডনিতে পাথর হওয়ার সম্ভাবনা অনেক অংশে কমে যায়। তাই কিডনি সুস্থ রাখতে প্রতিদিন সকালে উঠে এক গ্লাস লেবু পানি পান করুন।

৯) ত্বক সুন্দর রাখে

লেবুতে আছে প্রচুর পরিমানে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট যা রক্তকে পরিষ্কার রাখে। রক্ত থেকে খারাপ ও বিষাক্ত রাসায়ানিক পদার্থ গুলোকে বাইরে বের করে দেয় এর ফলে ত্বক হয় সুন্দর ও উজ্জ্বল ।

 ১০) মুখের দুর্গন্ধ দূর করে

পেঁয়াজ বা রসুন জাতীয় কোন তীব্র গন্ধের খাবার বা অন্য কোনো তীব্র গন্ধের খাবার খেলে দীর্ঘ সময় যাবৎ মুখ দিয়ে ওই খাবারের গন্ধই বেরোতে থাকে যা খুবই অস্বস্তিকর ‌একটা।এমন অবস্থায় যদি এক টুকরো লেবু বা লেবু পানি পান করা যায় তাহলে ওই খাবারের তীব্র গন্ধটা  চলে যায় সেই সঙ্গে মুখ দিয়ে একটা সুন্দর গন্ধ বের হয় যা আপনাকে খুব সতেজ অনুভব করায়‌।

বেশি লেবু খাওয়ার অপকারিতা

 ১)দাঁতের এনামেল ক্ষয়ে যায়

লেবুর মধ্যে আছে সাইট্রিক এসিড।অতিরিক্ত পরিমাণে লেবু খেলে এর মধ্যে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিড থেকে দাঁত ক্ষয়ে যাওয়ার মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে।এর ফলে দাঁতের ওপর সাদা স্তর পড়ে যায়।  ব্রাজিলের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ডেন্টাল অ্যান্ড ক্র্যানিওফেসিয়াল রিসার্চের একটি গবেষণাপত্রে দেখা যায়  সফট ড্রিংক খেলে দাঁতের যে সমস্যা হয়, লেবু থেকেও ঠিক একই সমস্যা হয়। 

২)মুখমণ্ডলের কোষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়

দীর্ঘদিন যাবত অতিরিক্ত পরিমাণে লেবু খেলে মুখের মধ্যে থাকা নরম কোষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সেখান থেকে মুখের মধ্যে ফোঁড়া বা ফুসকুড়ি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। শুধু লেবু নয় সাইট্রিক অ্যাসিড সমৃদ্ধ যে কোনও ফল খেলেই এই সমস্যা হতে পারে।

৩)অ্যাসিড এবং বমির আশঙ্কা থাকে

আমাদের শরীরের জন্য ভিটামিন সি প্রয়োজন তবে  অতিরিক্তও মাত্রায় ভালো নয়।অতিরিক্ত লেবু বা লেবুর রস খেলে সেখান থেকে অ্যাসিড হয় সেই সাতে বমি বমি ভাব বা বমি হতে পারে। শুধুমাত্র লেবু পানি নয়, যে কোনও ডিটক্স ডায়েট ড্রিংক থেকেই এ সমস্যা হতে পারে। অতিরিক্ত লেবু খাওয়ার ফলে অ্যাসিডিটির আশঙ্কা অনেক বেড়ে যায়।

৪)পেট খারাপ

অনেকেই খাবার হজম করতে লেবুর রস পান করে থাকেন। লেবুতে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিড হজমে সাহায্য করে। কিন্তু অনেকে জানে না অতিরিক্ত অ্যাসিডের কারণে পেটের সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই সব সময় উচিত খাবারের সঙ্গে মিশিয়ে লেবু খাওয়া।

৫)মাইগ্রেনের সমস্যা

ডাক্তারদের মতে, লেবু বা অন্যান্য সাইট্রাস জাতীয় ফল কোনও ব্যক্তির মাইগ্রেনের সমস্যা বাড়িয়ে দিতে পারে। সাইট্রাস ফলগুলিতে থাকা টাইরামাইন নামক একটি বিশেষ উপাদান এমনটার জন্য দায়ী।

৬)ডিহাইড্রেশন

আমরা গরমকালে ডিহাইড্রেশনের হাত থেকে বাঁচতে লেবু পানি পান করে থাকি। কিন্তু অতিরিক্ত লেবু পানি খাওয়ার ফলে আপনার শরীরে ডিহাইড্রেশনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। লেবু পানি পান করার ফলে ঘন ঘন প্রস্রাব হয়। যা থেকে শরীরে পানিশূন্যতা সৃষ্টি হয়। আসলে ইলেক্ট্রোলাইটস এবং সোডিয়ামের মতো উপাদানগুলিও প্রস্রাবের মাধ্যমে শরীর থেকে নির্গত হয়। যা ডিহাইড্রেশনের প্রধান কারণ।  

৭)রক্তে আয়রনের পরিমাণ বেড়ে যায়

ভিটামিন সি রক্তে আয়রনকে সংরক্ষণ করতে সাহায্য করে। এবার লেবু পানি অতিরিক্ত পান করলে শরীরে ভিটামিন সি-র পরিমাণ বেড়ে যায়। যা রক্তে অধিক পরিমাণ আয়রন সংরক্ষণ করে। যা ক্ষতিকর।

৮)উৎসেচক ভেঙে যায়

সকালে খালি পেটে লেবু খেলে আমাদের শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় উৎসেচক পেপসিন ভেঙে যায়। এই পেপসিন আমাদের শরীরে হজমে প্রক্রিয়ায় সাহায্য করে। মূলত প্রোটিন হজম করায়। অন্যদিকে লেবুর মধ্যে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিড পেপসিনকে ভেঙে ক্ষতিকর এনজাইম তৈরি করে। ফলে খাবার ঠিকমতো হজম হতে পারে না। এমনকি পেপটিক আলসার হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

৯)সানবার্ন

লেবুতে প্রচুর পরিমাণে অ্যালার্জি আছে। অনেকে এটা জানে না। পরে লেবু খেয়ে রোদে বের হলে স্কিনে লাল রেস দেখা যায়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে কালো ছোপ‌ ছোপ দেখা দেয়। যাকে আমরা সানবার্ন বলে ভুল করি। তবে ডাক্তারি পরিভাষায় একে সাইটোফোটোডার্মাটাইটিস বলা হয়। লেবুর মধ্যে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিডের সঙ্গে সূর্যালোকের বিক্রিয়ায় এই সমস্যাটি দেখা যায়। এ ছাড়াও অতিরিক্ত লেবুর রস স্কিন ক্যানসার ডেকে আনতে পারে।

সবশেষ

লেবুব বহু পুষ্টিগুণ সম্পন্ন একটি ফল। উপরোক্ত আলোচনা থেকে বুঝতেই পারছেন লেবুর হাজারো গুনাগুন রয়েছে। আপনার শরীরকে সুস্থ ও স্বাভাবিক রাখতে প্রতিদিন কমপক্ষে একটি করে লেবু খাওয়ার চেষ্টা করুন। তবে সব সময় খেয়াল রাখবেন অতিরিক্ত কোন কিছুই ভালো না। অতিরিক্ত লেবু খাওয়া থেকে বিরত থাকুন এতে উপকারের চাইতে ক্ষতি বেশি হবে। আশা করি আজকের আর্টিকেলটি থেকে আপনি কিছুটা হলেও উপকৃত হয়েছেন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

Also Read:  গ্রিন টি এর উপকারিতা এবং অপকারিতা

Related Post

খুশির স্ট্যাটাস

200+ স্টাইলিশ খুশির স্ট্যাটাস | হাসি নিয়ে ক্যাপশন

খুশির স্ট্যাটাস | হাসি নিয়ে ক্যাপশন জীবনের সুন্দর খুশির মুহূর্ত আমরা সবাই বাঁধাই করে রাখতে চাই। আর এই খুশির মুহূর্তকে ধরে রাখার সবচেয়ে সহজ উপায়

Read More »
❤love status bangla | ভালোবাসার ছন্দ | রোমান্টিক ছন্দ | প্রেম ছন্দ স্ট্যাটাস❤

স্টাইলিশ ভালোবাসার ছন্দ | রোমান্টিক ছন্দ | Love Status Bangla

❤❤ভালোবাসার ছন্দ | ভালোবাসার ছন্দ রোমান্টিক | ভালোবাসার ছন্দ স্ট্যাটাস❤❤ ভালোবাসা হলো এক অন্যরকম অনুভূতির নাম, যা শুধুমাত্র কাউকে ভালবাসলেই অনুভব করা যায়। আমরা বিভিন্নভাবে

Read More »
মন খারাপের স্ট্যাটাস

মন খারাপের স্ট্যাটাস, উক্তি, ছন্দ, ক্যাপশন, কিছু কথা ও লেখা

মন খারাপের স্ট্যাটাস মন খারাপ – এই কষ্টের অনুভূতি কার না হয়? সবারই কখনো না কখনো সবারই মন খারাপ হয়। জীবনের ছোটোখাটো অঘটন থেকে শুরু

Read More »
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে বলা হয় বিশ্বকবি। তিনি ছিলেন একজন বিচক্ষণ ও গুনী লেখক। প্রেম চিরন্তন এবং সত্য। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাঙালীর মনে প্রেমের

Read More »
ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা

ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা | Breakup Status Bangla

ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা আপনি কি আপনার প্রিয়জনের সাথে সম্পর্ক থেকে বের হয়ে এসেছেন? আর সেটা আপনি কোন ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা মাধ্যমে বোঝাতে চাচ্ছেন। তাহলে আপনি

Read More »

Leave a Comment

Table of Contents