Dreamy Media BD

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্ক 

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্ক

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্ক 

উত্তরবঙ্গের নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্ক বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ একটি ইকো পার্ক। এই পার্কটি নাটোরের লালপুর উপজেলায় অবস্থিত। এই পার্কটির সুন্দর সাজানো গোছানো পরিবেশের কারনে সারা বাংলাদেশের মধ্যে বেশ জনপ্রিয় একটি পার্ক। নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্ক নাটোর উপজেলা থেকে দুই কিলোমিটার দূরে অবস্থিত৷ আবার ঈশ্বরদী উপজেলা থেকে প্রায় ২০ কিমি দূরে অবস্থিত। নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্ক ১২৩ বিঘা জায়গায় নির্মান করা হয়েছে। 

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্ক ভ্রমণ 

পার্কটি এত বড় যে প্রথম যখন ঢুকবেন তখন বিভ্রান্ত হয়ে যেতে পারেন। কোন দিকে যাবেন মাথায় আসবেনা৷ পার্কটির ডান সাইডে গেলে চোখে পরবে কৃত্তিম ঝর্না পাহাড় সহ অনেক কিছু।  পার্কে ঢোকার সাথে সাথে দেখবে পাবেন ডাইনোসর এবং একটি কৃত্তিম ফোয়ারা।  শান্ত স্নিগ্ধ পরিবেশ সবাই ভালবাসে। গ্রিন ভ্যালি পার্ক এর সবুজ প্রকৃতি আবার অন্যদিকে শত শত ফুলের গাছ সব মিলিয়ে দেখলে মনে হবে ফুলের কোনো বিছানা পাতানো রয়েছে। রঙিন ফুল ফুলের সুমিষ্টঘ্রান পার্ককে মোহনীয় পরিবেশ এনে দিয়েছে৷ বাগানে ঘুরতে আসা পর্যটকদের ছায়া প্রদান করে পার্কের বড় গাছ গুলো। 

সুন্দর শান্ত স্নিগ্ধ পরিবেশ দৃষ্টিনন্দন পরিবেশ সৃষ্টি করে। পার্কের মনোরম দৃষ্টিনন্দন পরিবশের অনেকে বন্ধু বান্ধব নিয়ে পার্কে বেড়াতে আসেন৷ অনেকে আবার ফ্যামিলি সহ এসে আনন্দঘন সময় কাটান। পার্কে বেড়াতে গেলে চোখে পরবে এই আনন্দঘন পরিবেশ গুলো। চারদিকে সবার হাসিখুশি মুখ দেখলে মন ভাল হয়ে যায়। কেউবা গিটার নিয়ে গান গাইছে, কেউবা নাচছে। নাটোর এবং আশেপাশের অনেক স্কুল কলেজ থেকে শিক্ষক শিক্ষিকা সহ ছাত্রছাত্রী পিকনিকে আসেন। 

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কে শুধু যে বড়দের জন্য বিনোদনের ব্যবস্থা রয়েছে তা নয় এখানে শিশুদের বিনোদনের জন্য রয়েছে কিডস জোন। শিশুদের আনন্দঘন সময় কাটানোর জন্য বানানো হয়েছে বিভিন্ন রাইড যা শিশুদের আনন্দ দেয় এবং  নিরাপদ রাখে। 

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কে যা যা রয়েছে- 

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কের হ্রদ

গ্রিন ভ্যালি পার্কে সবাই বেড়াতে আসেন যে আকর্ষনের জন্য সেটি হচ্ছে হ্রদ। সবুজ গাছ গাছালির পাশে বিশাল বড় হ্রদ দেখলে সত্যি আনন্দে মন ভরে যায়৷ সবুজের সমূদ্র অন্যদিকে  সাদা স্বচ্ছ পানি দেখতে অসাধারন লাগে।এই হ্রদে বেড়াতে আসলে সবাই বোটে করে ঘুড়ে বেড়ায়৷ অনেকে আবার নৌকা ভাড়া করে সারাদিন হ্রদে ঘুরে বেড়ায়। যদি মাছ ধরতে পছন্দ করেন তাহলে কতৃপক্ষের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে মাছ ধরতে পারবেন। যারা গ্রিন ভ্যালি পার্কের হ্রদে যায় অনেকেই হ্রদের পাশে বসে মাছ ধরা দেখে। কেউবা নিরিবিলিতে বসে হ্রদের সৌন্দর্য অনুভব করে। কেউবা আবার হ্রদে ঘুরে বেড়ানো বোট এবং নৌকা দেখে আনন্দ উপভোগ করে। 

খুব অল্প টাকায় ঘুরে বেড়ানোর জন্য নৌকা বা বোট ভাড়া করতে পারবেন। সাধারনত পঞ্চাশ টাকা য়হেকে একশ টাকার মধ্যে  নৌকা বা বোট ভাড়া দেয়া হয়। চাইলে আপনিও নৌকা বা বোট ভাড়া করে ঘুরে দেখতে পারেন নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কের সৌন্দর্য। 

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

গ্রিন ভ্যালি পার্কের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ছাড়াও আরো একটি বিশেষ আকর্ষণ হচ্ছে এখানে আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বছরের বিভিন্ন সময় বিশেষ কোনো দিনে এখানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের এই আয়োজন গ্রিন ভ্যালি পার্ক এর কতৃপক্ষ আয়োজন করে থাকেন। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান দেখার জন্য আশেপাশের অনেক জায়গা থেকে স্থানীয় লোক আসেন। ঘুরতে আসা অনেকে এই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে আনন্দ উপভোগ করে৷ 

সাধারনত পার্কের পরিবেশ অনেক নোংড়া হয়ে যায় যখন ব্যবস্থাপনার জন্য লোকের অভাব থাকে অনেক সময় ইচ্ছার অভাব হলেও পরিবেশ নোংড়া হয়ে যায়। তবে নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্ক গেলে আপনার মন নিমিষেই ভাল হবে এর সুন্দর পরিচ্ছন্ন  পরিবেশ দেখলে। দর্শনার্থীদের খাওয়ার জন্য এখানে পাবেন খাবারের অনেক ভালো ভালো ষ্টল। তাই এখানে যারা৷ বেড়াতে আসেন তারা সবাই অনেক পছন্দ করেন। পার্কের নির্মল পরিবেশ, শান্ত স্নিগ্ধ হ্রদ এবং বিনোদন কেন্দ্রের সাজানো গোছানো পরিবেশ সব মিলিয়ে পরিবার বা বন্ধুদের নিয়ে ভ্রমন করার জন্য দারুন একটি জায়গা। 

সুইমিংপুল/ ওয়াটার পুল

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কে গোসল করার জন্য সুইমিংপুলের ব্যবস্থা রয়েছে। বলা চলে নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কের এই সুইমিংপুলও অন্যতম প্রধান আকর্ষণ।  প্রতিদিন যারা এখানে ঘুরতে আসে তাদের অনেকেই এই সুইমিংপুলে গোসল করে। সুইমিংপুলের পাশে রয়েছে গান বাজনার ব্যবস্থা। মাঝারি আকৃতির সুইমিংপুল হওয়ায় অনেক সময় দর্শনার্থীরা গোসল করার সুযোগ পাননা। কারন সুইমিংপুলের  পরিষ্কার ঠান্ডা পানি দেখে কেউ নিজেকে সামলাতে পারেননা। অনেকে হয়তো গোসল করার জন্য প্রিপারেশন নিয়ে আসেনা কিন্তু সুইমিংপুলের পানি দেখে লোভও সামলাতে পারেনা গোসল করার। তাই এ ধরনের পরিস্থিতি থেকে বাচার জন্য রয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা৷ সুমিংপুলের পাশে খুব অল্প টাকায় ছেলে মেয়ে যে কারো পোশাক ভাড়ায় পাওয়া যায়। স্কুল কলেজ থেকে  পিকনিকে আসা ছেলে মেয়েরা এখানে গোসল করা ছাড়াও অনেকে আসেন সুইমিংপুলের পরিষ্কার পানিতে গোসল করার জন্য৷ সুইমিংপুলে গোসল করার জন্য খুব বেশি টাকা গুনতে হয়না৷ওয়াটার পুলে পছন্দের মানুষকে বা ফ্যামিলির যে কাউকে এনে অনেক ইঞ্জয় করতে পারবেন। ওয়াটার পুলের মাঝখানে গোল গোল চাকার মত কিছু রিং দেখতে পাবেন। ওয়াটার পুলে আপনি সুইমিং করতে পারবেন। নিজের প্রয়োজনীয় জিনিস রাখার জন্য এখানে রয়েছে লকার। লকারে আপনার গুরুত্বপূর্ণ জিনিস রেখে নিশ্চিন্তে সুইমিং করতে পারবেন। লকারে জিনিস রাখার জন্য আপনাকে ১০০ টাকা দিতে হবে৷ জিনিস নেয়ার সময় ৫০ টাকা ফেরত পাবেন। ওয়াটার পুলের টিকেট মূল্য ২৫০ টাকা।

গ্রিনভ্যালি পার্কের রাইড সমূহ এবং টিকেট মূল্য

রাইডে যাওয়ার সময় সুন্দর একটি পথ পাবেন। অপরাজিতা কুঞ্জলতা দিয়ে রাস্তার দুই সাইডে ওয়াল বানানো মাথার উপরে দেখতে পাবেন নানান ফুলের মাচা। রাইডের কাছে পৌছালে দেখতে পাবেন মজার মজার অনেক রাইড। কোনো রাইডে  উঠলে মনে হবে আপনি হয়তো আকাশে উড়ছেন৷ আপনার সাথে বাচ্চা গেলে তাকে মেরি গোরাউন্ড রাইডে উঠিয়ে দিতে পারেন। ঘোড়ায় উঠে বাচ্চারা অনেক ইঞ্জয় করে৷ এছাড়াও বাচ্চাদের জন্য রয়েছে মিনি ট্রেন। মিনি ট্রেনে উঠলে বাচ্চাদের মনে হবে তারা যেন সত্যিকারের ট্রেনে উঠেছে। এরুপ্লেন রাইড নামে একটি রাইড রয়েছে৷ যেখানে ছোট বড় সবাই উঠতে পারে। এই রাইডটির টিকেট মূল্য ৪০ টাকা। 

এখানে যত রাইড আছে সব গুলোই ত্রিশ চল্লিশ টাকার মধ্যে ওঠা যায়। আর একটি মজার রাইডের নাম হচ্ছে কাপ পিরিচের রাইড। কাপ পিরিচ রাইডে ছোট বড় সবাই উঠতে পারবে এবং এই রাইডের মূল্য হচ্ছে ত্রিশ টাকা। যারা ঘোড়ায় চড়তে ভালবাসেন তারা এই পার্কে আসলে ঘোড়ায় উঠতে পারেন। কৃত্তিম কোনো ঘোড়া নয় সত্যিকারের ঘোড়ায় মাত্র পঞ্চাশ টাকা দিয়ে উঠতে পারবেন৷ ঘোড়ায় উঠলে ঘোড়া আপনাকে নিয়ে তিন বার রাউন্ড দিবে৷ ছোটবেলায় নিশ্চই নাগর দোলায় উঠেছেন৷ এখানে আসলে পেয়ে যাবেন নাগড় দোলা। নাগর দোলায় ওঠার মূল্য হচ্ছে ত্রিশ টাকা। আর একটি মজার রাইড হচ্ছে কার। ছোট ছোট কারে উঠে আপনি নিজে ড্রাইভ করে ঘুরতে পারবেন। কার রাইডের টিকেট মূল্য পঞ্চাশ টাকা। 

ফ্লাওয়ার ভেলী 

ফ্লাওয়ার ভেলী হচ্ছে নাটোর গ্রিন পার্কের অন্যতম একটি সুন্দর জায়গা৷ ফ্লাওয়ার ভেলীতে প্রবেশ মূল্য হচ্ছে বিশ টাকা।বিশ টাকায় আপনি ফুলের রাজ্যে হারিয়ে যাবেন৷ জানা অজানা শত শত ফুল দেখার সুযোগ হবে আপনার। গোলাপ, বেলী, অপরাজিতা, বাগান বিলাশ,কামিনী, সন্ধ্যা মালতি, কাঠ গোলাপ, গোলাপ কোন ফুল নেই। পৃথীবির সব ফুল যেন ফ্লাওয়ার ভেলীতে এনে লাগানো হয়েছে। ফ্লাওয়ার ভেলীতে ঢুকলে চোখে পরবে আর একটি মজার জিনিস সেটি হচ্ছে লাভ ট্রি। এই গাছে অসংখ্য বড় বড় লাভ দেখতে পাবেন যা দেখলে মুগ্ধ না হয়ে পারবেন না৷ কাপলরা এই লাভ ট্রি তে এসে ছবি তুলে। তাই কাপলদের কাছে এটি রোমান্টিক একটি জায়গা। 

গ্রিনভ্যালি পার্কের সবথেকে সুন্দর জায়গা। ফ্লাওয়ার ভেলীর মাঝখানে এই জায়গাটির অবস্থান চারদিক ফুল গাছ দিয়ে সাজানো আর সামনেই দেখতে পাবেন একটি পাহাড়। পাহাড়ে দেখতে পারবেন স্পাইডার পরী সহ অনেক মূর্তি।  ফ্লাওয়ার ভেলী থেকে বের হলে দেখতে পারবেন গ্রামীন কিছু স্থাপনা। গ্রামীন ডিসপ্লে এত সুন্দর করে বানিয়েছে দূর থেকে দেখলে মনে হবে সত্যি করেই কোনো গ্রাম দেখতে পাচ্ছেন। গ্রামীন ডিসপ্লেতে গেলে দেখবেন কৃষক মাঠে গরু দিয়ে চাষ করছেন, কুমোড় দা বটি বানাচ্ছে। 

ড্রিম ফরেষ্ট

গ্রিনভ্যালি পার্কে ড্রিম ফরেষ্ট খুবই আকর্ষণীয় একটি জায়গা। জায়গাটি দেখতে ছোট হলেও আপনি মুগ্ধ হবেন। ড্রিম ফরেষ্টের ভিতরে ঢুকলে দেখতে পাবেন একটি চমৎকার ঝর্ণা। ঝর্ণার পাশে দেখতে পাবেন পাখির রাজ্য। জানা অজানা অনেক পাখির দেখা মিলবে ড্রিম ফরেষ্টে ঢুকলে। দেশি বিদেশী অনেক পাখি রয়েছে এখানে। আর একটি মজার জিনিস দেখতে পারবেন সেটি হলো মূর্তির মাথার ফোয়ারা থেকে পানি ঝড়ে পরছে ক্রমাগতভাবে। ড্রিম ফরেষ্টে একটি ছোট লেকও রয়েছে। সবুজ গাছপালা আর ফুলে ঘেরা ড্রিম ফরেষ্টে গেলে আপনি দারুন আনন্দ পাবেন। 

নাইন ডি মুভি হল

গ্রিনভ্যালি পার্কের আরেকটি মজার জিনিস হচ্ছে নাইনডি মুভি। নাইনডি মুভি হল ঢোকার আগেই দেখতে পাবেন ভয়ংকর একটি মূর্তি। এই মূর্তির ভিতর দিয়েই হলে ঢুকতে হয়। নাইনডি মুভি হলে প্রবেশ মূল্য ৫০ টাকা। সাত থেকে আট মিনিটের একটি শো দেখায় নাইনডি মুভি হলে।

পিকনিক স্পট জোন

পিকনিক স্পটের জন্য রয়েছে অনেক সুন্দর একটি মাঠ। সেখানে স্কুল কলেজের সবাই পিকনিকের আয়োজন করে।সেখানে রয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করার জন্য মঞ্চ। রান্না করার ব্যবস্থা থাকায় নিজেরাই রান্না করতে পারবেন। এখানে ছোটবড় অনেক পিকনিক করার জন্য মাঠ পাবেন। সবগুলো মাঠই সবুজ ঘাসে ভরা চমৎকার মাঠ।

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কের পার্কিং ব্যবস্থা

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কএর বিনোদন ব্যবস্থা এবং পরিবেশের জন্য দূর দূরান্তে ছড়িয়ে পরেছে এই পার্কের নাম। অল্প দিনেই বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। তাই  নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কে প্রতিদিন দূর দূরান্ত থেকে অনেক মানুষ আসেন বিনোদনের জন্য। পর্যটকরা বিভিন্ন যানবাহন নিয়ে এখানে বেড়াতে আসেন। তাই পর্যটকদের দের যানবাহন রাখার জন্য রয়েছে বিশেষ পার্কিং ব্যবস্থা। যানবাহনের ধরন অনুযায়ী পার্কে রাখার জন্য ফি নির্ধারন করা হয়। গাড়ির ধরন অনুযায়ী পার্কিং এর জন্য ১০ টাকা থেকে ৩০০ টাকার মধ্যে পার্ক করা যায়।  যেমন – 

★ বড়  বাস এর জন্য নির্ধারিত ফি হলো ৩০০ টাকা

★ মিনি বাস এর জন্য ফি ২০০ টাকা

★হায়েস গাড়ির জন্য ১৫০ টাকা

★প্রাইভেট কারের জন্য নির্ধারিত ফি ১০০ টাকা

★সিএনজি বা অটোরিক্সার জন্য ৫০ টাকা ফি

★মোটর সাইকেল এর জন্য ফি ২০ টাকা এবং 

★ সাইকেল এর জন্য ফি হলো ১০ টাকা।

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্ক কিভাবে যাবেন

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্ক বাস ট্রেন যে কোনো ভাবেই যেতে পারবেন। ঢাকা থেকে গাবতলি, সায়দাবাদ,ফকিরাপুল সহ যে কোনো বাস ষ্টান্ডে নাটোর এর গাড়ি পাওয়া যায়৷ নাটোরে পৌছে সি এনজি বা অটো রিক্সা নিয়ে সরাসরি লালপুর গ্রিন ভ্যালি পার্ক যেতে পারবেন। আর যদি ট্রেনে করে যেতে চান ঢাকার যে কোনো রেলষ্টেষন থেকে সরাসরি নাটোর এর ট্রেনে উঠে যাবেন। নাটোর ষ্টেষন থেকে অটো বা সিএনজি রিজার্ভ নিয়ে লালপুর যেতে হবে।  নাটোর সদর থেকে চল্লিশ বা পঞ্চাশ টাকা দিয়ে চলে যেতে পারবেন গ্রিন ভ্যালি পার্কে। 

কোথায় থাকবেন

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কে অনেক দূর থেকে পর্যটক বেড়াতে আসেন৷ অনেক সময় বিদেশী পর্যটকও দেখা যায়। নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্ক রাতে যেন আরো মোহনীয় হয়ে ওঠে। তাই অনেক পর্যটক রাতে থেকে যান। তাই পার্কের পাশেই কিছু আবাসিক হোটেল রয়েছে। থাকার জন্য রয়েছে চমৎকার আবাসিক হোটেল। এই হোটেলে সব ধরনের রুম পাওয়া যায়৷ সিংগেল, ডাবল বা ফ্যামিলি রুম পেয়ে যাবেন খুব অল্প টাকায়৷ যদি একা যান তাহলে ২৫০ টাকায় সিংগেল রুম পাবেন, দুজন বা কাপল গেলে কাপলদের জন্য রয়েছে সাজানো গোছানো সুন্দর রুম। কাপ রুম ৫০০ টাকার মধ্যে পেয়ে যাবেন। ভাল কিছু আবাসিক হোটেল এর মধ্যে হোটেল রোকসানা এবং ভিআইপি অন্যতম। এছাড়াও রয়েছে নাটোর বোর্ডিং, হোটেক রাজ, হোটেল মিল্লাত, এবং হোটেল প্রিন্স।

গ্রিন ভ্যালি পার্কে গেলে কোথায় খাবেন

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কে অনেক ক্যাফেটেরিয়া পাবেন খাওয়ার জন্য। মান এবং পরিবেশ মিলে তাই দামটাও একটু বেশি রাখে। ক্যাফেটেরিয়া তে আপনি যে কোনো খাবার পেয়ে যাবেন৷ খাবার অর্ডার করারও অপশন রয়েছে। পাশেই পাবেন ক্যান্টিন৷ ক্যান্টিনেও দেশি বিদেশী সব ধরনের খাবার পাওয়া যায়। ক্যান্টিন এবং ক্যাফেটেরিয়ার পরিবেশ অনেক সুন্দর। অনেকেই বাহির থেকে খাবার কিনে এনে ভিতরে সবুজ খোলা মাঠে বসে খায়। অনেকে খাবার টেষ্ট করার জন্য ক্যাফেটেরিয়ায় খায়৷ তবে আপনি চাইলে পার্কের বাইরেও খেতে পারেন। পার্কের বাইরে বেশ কিছু ভাল ভাল হোটেল রয়েছে৷ খাবারের মান পরিবেশ সব মিলিয়ে দাম তুলনামুলক অনেক স্বস্তা। এরমধ্যে একটি রেষ্টুরেন্ট এর নাম না বললেই নয় সেটি হলো ইসলামিয়া পাচুর রেষ্টুরেন্ট৷ এখানকার খাবারের স্বাদ অসাধারন। সারাজীবন মুখে লেগে থাকার মত স্বাদ। এই হোটেলে অল্প দামে নাটোরের কাচা গোল্লাও পাওয়া যায়৷ নাটোরে গিয়ে নাটোরের কাচা গোল্লার স্বাদ না নিয়ে ফিরে যাওয়া একধরনের ভুল বৈকি! এই হোটেলে রানী ভবানী এবং নাটোর চলনবিলের মাছের স্বাদ না নিলে পস্তাতে হবে এতটাই সুস্বাদু। 

নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কের মোহনীয় পরিবেশ, মনোরম দৃশ্য আর এর রাইড গুলোর জন্য সারা দেশব্যপি এর নাম ছড়িয়ে যাচ্ছে৷ তাই নাটোর রাজশাহী ছাড়াও অনেক দূর দূরান্ত থেকে সবাই বেড়াতে আসেন। স্কুল কলেজের পিকনিক তো আছেই৷ ফ্যামিলি সহ চলে আসেন নাটোর গ্রিন ভ্যালি পার্কে পিকনিক করার জন্য। 

গ্রিন ভ্যালি পার্কের প্রবেশ মূল্য

গ্রিন ভ্যালি পার্কের টিকেট এর দাম তুলনামুলক সস্তা। মাত্র ৫০ টাকা টিকেট মূল্য দিয়েই ভিতরে প্রবেশ করা যায়। তিন বছরের বেশি বড় বাচ্চাদের টিকেট মূল্য বড়দের মতই। তিন বছরের নিচের বাচ্চাদের টিকেট মূল্য লাগেনা। 

নাটোর ঐতিহাসিক একটি জায়গার নাম। মুলত বনলতা সেনের জন্যই জায়গাটি সারাবিশ্বে সবাই চিনে থাকে৷ নাটোরের গ্রিনভ্যালি পার্ক তেমন একটি সুন্দর জায়গা। নাটোরে বেড়াতে গেলে অবশ্যই এই সুন্দর পার্কটি দেখে যাবেন। এই আর্টিকেল থেকে নাটোর গ্রিনভ্যালি পার্কের সবকিছু আলোচনা করা হয়েছে আশা করছি আপনাদের সবার অনেক ভাল লাগবে এবং উপকারে আসবে। 

Read more : সাজেকের সেরা রিসোর্টের তালিকা

 

Related Post

খুশির স্ট্যাটাস

200+ স্টাইলিশ খুশির স্ট্যাটাস | হাসি নিয়ে ক্যাপশন

খুশির স্ট্যাটাস | হাসি নিয়ে ক্যাপশন জীবনের সুন্দর খুশির মুহূর্ত আমরা সবাই বাঁধাই করে রাখতে চাই। আর এই খুশির মুহূর্তকে ধরে রাখার সবচেয়ে সহজ উপায়

Read More »
❤love status bangla | ভালোবাসার ছন্দ | রোমান্টিক ছন্দ | প্রেম ছন্দ স্ট্যাটাস❤

স্টাইলিশ ভালোবাসার ছন্দ | রোমান্টিক ছন্দ | Love Status Bangla

❤❤ভালোবাসার ছন্দ | ভালোবাসার ছন্দ রোমান্টিক | ভালোবাসার ছন্দ স্ট্যাটাস❤❤ ভালোবাসা হলো এক অন্যরকম অনুভূতির নাম, যা শুধুমাত্র কাউকে ভালবাসলেই অনুভব করা যায়। আমরা বিভিন্নভাবে

Read More »
মন খারাপের স্ট্যাটাস

মন খারাপের স্ট্যাটাস, উক্তি, ছন্দ, ক্যাপশন, কিছু কথা ও লেখা

মন খারাপের স্ট্যাটাস মন খারাপ – এই কষ্টের অনুভূতি কার না হয়? সবারই কখনো না কখনো সবারই মন খারাপ হয়। জীবনের ছোটোখাটো অঘটন থেকে শুরু

Read More »
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে বলা হয় বিশ্বকবি। তিনি ছিলেন একজন বিচক্ষণ ও গুনী লেখক। প্রেম চিরন্তন এবং সত্য। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাঙালীর মনে প্রেমের

Read More »
ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা

ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা | Breakup Status Bangla

ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা আপনি কি আপনার প্রিয়জনের সাথে সম্পর্ক থেকে বের হয়ে এসেছেন? আর সেটা আপনি কোন ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা মাধ্যমে বোঝাতে চাচ্ছেন। তাহলে আপনি

Read More »

Leave a Comment

Table of Contents