Dreamy Media BD

শ্বাসকষ্ট থেকে চিরতরে মুক্তির উপায় 

শ্বাসকষ্ট থেকে চিরতরে মুক্তির উপায় 

শ্বাসকষ্ট থেকে চিরতরে মুক্তির উপায় 

শ্বাসকষ্ট সমস্যায় যে কোনো বয়সের মানুষ ভুগতে পারে। তবে বয়স্ক ব্যক্তি এবং শিশুদের ক্ষেত্রে এই সমস্যা বেশি দেখা যায়৷ আজকের এই লেখায়টি তে জানব, শ্বাসকষ্ট থেকে চিরতরে মুক্তির উপায়।

 

শ্বাসকষ্ট থেকে চিরতরে মুক্তির উপায় 

শ্বাসকষ্ট হওয়ার প্রধান কারন কি? 

শ্বাসকষ্ট হওয়ার প্রধান কারন গুলোর মধ্যে কিছু কারন হচ্ছে সর্দি, হাপানি, এলার্জি, রক্তস্বল্পতা, মৃগি রোগ, মানসিক বা অন্য যে কোনো জটিল অসুখ হলে মানুষ শ্বাসকষ্টে ভুগে থাকেন। শ্বাসকষ্টের জন্য বেশিরভাগ ক্ষেত্রে রুগির ফুসফুসের সমস্যা দায়ী। অনেক সময় শরীর অনেক দূর্বল থাকলে শ্বাসকষ্ট সমস্যা দেখা যায়। আবার অনেকের ডাষ্ট প্রব্লেম অর্থাৎ ধুলাবালু ভিতরে গেলে শ্বাসকষ্ট হয়। 

 

সর্দি জ্বর বা অন্যান্য রোগের কারনে শ্বাসকষ্ট হলে এগুলো সাময়িক। ঘরোয়া কিছু উপায় অবলম্বন করলে সাময়িম শ্বাসকষ্ট থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। আর যদি দীর্ঘ দিন ধরে শ্বাসকষ্ট থাকে তখন চিকিৎসক এর পরামর্শ নিতে হবে।

 আজকের আর্টিকেলে বলে দিব শ্বাসকষ্ট দূর করার জন্য কিছু উপায়- 

শ্বাসকষ্ট সমস্যায় ব্ল্যাক কফি

গবেষনায় দেখা গেছে ব্ল্যাক কফিতে থাকা ক্যাফেইন শ্বাসকষ্ট দূর করতে সাহায্য করে। যাদের হাপানি সমস্যা,  ঠান্ডা জ্বর হয় তারা নিয়মিত ব্ল্যাক কফি খেতে পারেন। ব্ল্যাক কফিতে থাকা ক্যাফেইন শ্বাসনালীর পেশিকে রিলাক্স করতে সাহায্য করে। যাদের হাপানি রোগ আছে তারা প্রতিদিন ব্ল্যাক কফি খেলে শ্বাসকষ্ট হয়না। 

শ্বাসকষ্ট নিরাময়ে আদা

আদা অনেক উপকারি একটি মসলা। জ্বর সর্দিতে আদা খুব ভাল কাজ করে। একইভাবে আদা শ্বাসকষ্ট দূর করতে সাহায্য করে। যাদের শ্বাসকষ্ট সমস্যা রয়েছে নিয়মিত আদা চা খেতে পারেন। অথবা আদার রস এবং পানি একসাথে মিশিয়ে গরম করে খেলে শ্বাসকষ্ট হবেনা। আদায় থাকা ভিটামিন সি আ্যন্টিঅক্সিডেন্ট আ্যন্টি- ইনফ্ল্যামেটরী  হিসেবে কাজ করে। যার ফলে শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যা হলে আদা খেলে মুক্তি মেলে। 

আ্যপেল সিডার ভিনেগার

আ্যপেল সিডার ভিনেগারে আ্যসিটিক এসিড থাকে। এই উপাদানটি শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমন প্রতিরোধ করে এবং শ্বাসযন্ত্রের টিস্যুকে ক্ষতি হওয়া থেকে রক্ষা করে। তাই শ্বাসকষ্টের সমস্যায় নিয়মিত আ্যপেল সিডার ভিনেগার খেতে হবে। 

শ্বাসকষ্ট সমস্যায় হলুদ

হলুদে রয়েছে আ্যন্টি ইনফ্লামেটরি এবং আ্যন্টিব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা শ্বাসকষ্ট দূর করে। শ্বাসকষ্ট সমস্যায় কাচা হলুদ ব্লেন্ড করে হলুদের রসের সাথে হালকা কুসুম গরম দুধ পান করলে শ্বাসকষ্ট সমস্যা হয়না। হলুদে কারকিউমিন থাকার কারনে এলার্জি সমস্যা দূর হয় এবং হিষ্টামিন নি:সরন রোধ করে। এই উপাদান গুলো থাকার কারনে শ্বাসকষ্ট সমস্যা দূর হয়।

শ্বাসকষ্ট সমস্যায় জুস বানানোর রেসিপি 

 

প্রয়োজনীয় উপাদান

১. ফুলওয়ালা লবঙ্গ ১০ থেকে বারটি

২. তুলসিপাতা চারটি

৩. আদা কুচি/ রস এক চামচ

৪. লেবুর রস এক চামচ

৫.লবন স্বাদমতো

 

যেভাবে জুসটি বানাবেন:

প্রথমে পাতিলে পানি দিয়ে চুলা অন করে দিতে হবে। পানিতে লবঙ্গ,  তুলসিপাতা, আদার রস,লেবুর রস এবং লবন দিয়ে পানি না ফুটা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। পানি ফুটলে চুলা অফ করে নামিয়ে নিন। 

এবার ঠান্ডা করে অথবা কুসুম গরম অবস্থায় জুসটি পান করুন। সারাদিন জুসটি খেতে পারবেন। চাইলে ফ্রিজে একদিন রেখে খেতে পারবেন। এই জুসটি নিয়মিত পান করলে শ্বাসকষ্ট সমস্যা দূর হবে। সেই সাথে লিভারও ভাল রাখে। 

শ্বাসকষ্ট হলে সামনের দিকে ঝুকে বসুন

শ্বাসকষ্ট সমস্যায় সামনের দিকে ঝুকে বসলে শরীর অনেক রিলাক্স হয় যার কারনে শ্বাসকষ্ট দূর হয়। যখন আপনার শ্বাসকষ্ট দেখা দিবে তখন একটি চেয়ারে ভালভাবে বসুন। এবার দুই প নিচে রেখে দুই হাত কোলে রেখে সামনের দিকে  ঝুকে বসতে হবে। আর রুগি যদি বেহুশ হয়ে পরে তাহলে তাকে ধরে বসাতে হবে। এভাবে সামনের দিকে ঝুকে বসলে ফুসফুস এবং হার্টে চাপ সৃষ্টি হয়। তাই শ্বাসকষ্ট দূর হয়। 

শ্বাসকষ্ট হলে কাপড় ঢিলা করুন

শ্বাসকষ্ট সমস্যা হলে কাপড় ঢিলা করা গুরুত্বপূর্ণ ব্যপার। কারন কাপড় ঢিলা না থাকলে শ্বাসকষ্ট আরো বেশি বেড়ে যায়। তাই শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়ার সাথেই শরীরের কাপড় আলগা করে দিন। মেয়েদের ক্ষেত্রে ব্রা পরা থাকলে খুলে দিয়ে জামা ঢিলা করতে হবে৷ 

শ্বাসকষ্টে পেটের পেশিকে ব্যবহার

শ্বাসকষ্ট যখন শুরু হবে সাথে সাথে পেটের পেশিকে ব্যবহার করে দীর্ঘ শ্বাস নিতে হবে৷ প্রথমে চিত হয়ে শুতে হবে। মাথায় কোনো বালিশ দেয়া যাবেনা। দুই হাত পেটের উপর রেখে গভীর ভাবে শ্বাস গ্রহন করতে হবে৷ গভীর ভাবে শ্বাস নিয়ে শ্বাস কিছুক্ষন ধরে রাখতে হবে৷  কয়েক মিনিট এভাবে  দীর্ঘ শ্বাস নিয়ে শ্বাস ধরে রেখে আবার ধীরে ধীরে ছেড়ে দিতে হবে। এভাবে কয়েক মিনিট বারবার করলে শ্বাসকষ্ট দূর হবে। 

পার্সড লিপ ব্রিদিং এক্সারসাইজ 

নাক দিয়ে শ্বাস গ্রহন করে মুখ দিয়ে ঠোঁটের মাধ্যমে বাশি বাজার মত শ্বাস ছেড়ে দেয়াকে পার্সড লিপ ব্রিদিং এক্সারসাইজ বলে। যখন কেউ মানসিক ভাবে অনেক চাপে থাকে, উত্তেজিত হয় তখন যদি শ্বাসকষ্ট  দেখা দেয় তাহলে এই ব্রিদিং এক্সারসাইজ করলে শ্বাসকষ্ট দূর হয়। যখন উদ্বেগ বা টেনসন অনেক বেড়ে যাবে এবং বুঝতে পারবেন আপনার শ্বাসকষ্ট সমস্যা হচ্ছে বা দ্রুত হতে পারে তাহলে সাথে সাথে ব্রিদিং এক্সারসাইজ শুরু করবেন।  যেভাবে ব্রিদিং এক্সারসাইজ করবেন-

  • আপনার ঘাড় এবং পেশিগুলো রিলাক্স করুন। এবার আপনার নাক দিয়ে ধীরে ধীরে শ্বাস গ্রহন করুন। 
  • নাক দিয়ে শ্বাস গ্রহন করে তিন থেকে চার সেকেন্ড শ্বাস ধরে রাখুন। নাক দিয়ে শ্বাস গ্রহনের সময় মুখ বন্ধ রাখতে হবে।
  • এবার মুখ একটু খুলে শিষ বাজার মত করে ঠোট দুটো একটু ভাজ করে ধীরে ধীরে শ্বাস মুখ দিয়ে ছেড়ে দিন। এমন ভাবে শ্বাস ছাড়বেন যেন শ্বাস ছাড়তে পাচ থেকে ছয় সেকেন্ড লাগে।
  • এরকম কয়েকবার ব্রিদিং এক্সারসাইজ করুন।

হাই থেকে তোলা হাসি

শ্বাসকষ্ট সমস্যায় এই এক্সারসাইজ টি অনেক ভাল কাজ করে। মুখ আস্তে আস্তে করে হা করুন হাই হলে যেমন মুখ হা হয় ঠিক সেরকম করুন। এবার আস্তে আস্তে মুখ হাসির মত করুন অথবা হাসার চেষ্টা করুন। শ্বাসকষ্ট রোধে এই এক্সারসাইজ টি দারুন কার্যকরী। 

শ্বাসকষ্ট সমস্যা ষ্টিম ইনহিলেশন/ গরম ভাপ

যারা নিয়মিত ষ্টিম ইনহেলার নেন তাদের শ্বাসনালীতে ঘন শ্লেশ্মা জমা হয়। আর তখন শ্বাসকষ্ট সমস্যা দেখা দেয়। ষ্টিম ইনহেলার নিলে দুই দিন পর পর গরম পানির ভাপ বা ষ্টিম ইনহিলেশন করতে হবে৷ একটি পাতিলে গরম পানি করতে হবে। যতক্ষন না পানি ফুটতে থাকে ততক্ষন পর্যন্ত পানি গরম করতে হবে। এবার একটি বড় গামলায় পানি নিয়ে মুখের যত কাছে আনা যায় ততো কাছে গামলা এনে মুখ হা করে ভাপ নিতে হবে। কয়েক মিনিট এভাবে ভাপ নিলে শ্লেষ্মা থাকলে শ্লেষ্মা গলে তরল হয়। ফলে শ্বাসকষ্ট হয়না। 

শ্বাসকষ্ট রোধে করনীয় কি? 

  • ধুমপান পরিহার করতে হবে
  • বেশি লোমযুক্ত পশু বাসায় রাখবেন না।
  • আ্যলার্জি জাতীয় খাবার পরিহার করতে হবে
  • বাসা এবং বাসার আশেপাশ সবসময় পরিষ্কার রাখুন। 
  • বাইরে গেলে মাস্ক ব্যবহার করুন।
  • হাপানি থাকলে চিকিৎসা করান।
  • শীতকালে ঠান্ডা লাগা থেকে বিরত থাকুন।
  • অতিরিক্ত ওজন থাকলে ওজন কমিয়ে ফেলুন। 

শ্বাসকষ্টের কারনে প্রতিদিন অনেক মানুষ মরে যাচ্ছে। তাই শ্বাসকষ্ট দূর করার জন্য নিয়ম মেনে চলতে হবে। শ্বাসকষ্টের সমস্যা জটিল আকার ধারন করলে দ্রুত চিকিৎসক এর শরনাপন্ন হোন। 

Also Read: কিভাবে নবজাতক শিশুর যত্ন নিতে হবে!

 

Related Post

খুশির স্ট্যাটাস

200+ স্টাইলিশ খুশির স্ট্যাটাস | হাসি নিয়ে ক্যাপশন

খুশির স্ট্যাটাস | হাসি নিয়ে ক্যাপশন জীবনের সুন্দর খুশির মুহূর্ত আমরা সবাই বাঁধাই করে রাখতে চাই। আর এই খুশির মুহূর্তকে ধরে রাখার সবচেয়ে সহজ উপায়

Read More »
❤love status bangla | ভালোবাসার ছন্দ | রোমান্টিক ছন্দ | প্রেম ছন্দ স্ট্যাটাস❤

স্টাইলিশ ভালোবাসার ছন্দ | রোমান্টিক ছন্দ | Love Status Bangla

❤❤ভালোবাসার ছন্দ | ভালোবাসার ছন্দ রোমান্টিক | ভালোবাসার ছন্দ স্ট্যাটাস❤❤ ভালোবাসা হলো এক অন্যরকম অনুভূতির নাম, যা শুধুমাত্র কাউকে ভালবাসলেই অনুভব করা যায়। আমরা বিভিন্নভাবে

Read More »
মন খারাপের স্ট্যাটাস

মন খারাপের স্ট্যাটাস, উক্তি, ছন্দ, ক্যাপশন, কিছু কথা ও লেখা

মন খারাপের স্ট্যাটাস মন খারাপ – এই কষ্টের অনুভূতি কার না হয়? সবারই কখনো না কখনো সবারই মন খারাপ হয়। জীবনের ছোটোখাটো অঘটন থেকে শুরু

Read More »
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে বলা হয় বিশ্বকবি। তিনি ছিলেন একজন বিচক্ষণ ও গুনী লেখক। প্রেম চিরন্তন এবং সত্য। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাঙালীর মনে প্রেমের

Read More »
ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা

ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা | Breakup Status Bangla

ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা আপনি কি আপনার প্রিয়জনের সাথে সম্পর্ক থেকে বের হয়ে এসেছেন? আর সেটা আপনি কোন ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা মাধ্যমে বোঝাতে চাচ্ছেন। তাহলে আপনি

Read More »

Leave a Comment

Table of Contents