Dreamy Media BD

জমির রেকর্ড যাচাই

জমির রেকর্ড যাচাই

জমির রেকর্ড যাচাই

জমির রেকর্ড যাচাই করা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। জমির মালিকানা প্রমাণ করার জন্য, জমি ক্রয়-বিক্রয়ের সময় জালিয়াতিসহ অন্যান্য জটিলতার হাত থেকে রক্ষা পেতে জমির রেকর্ড যাচাই করা প্রয়োজন।

বাংলাদেশে বর্তমানে ২০২৩ সালের ভূমি জরিপ চলছে। এই জরিপের মাধ্যমে জমির মালিকানা সংক্রান্ত তথ্য আপ-টু-ডেট করা হবে। তাই আপনার জমির রেকর্ড যাচাই করার জন্য এখনি  উপযুক্ত সময়।

আপনিও যদি আপনার জমির রেকর্ড যাচাই করতে চান? 

তাহলে, আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য। 

 

জমির রেকর্ড বের করার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য 

আপনি যদি আপনার জমির রেকর্ড যাচাই করতে চান? তাহলে আপনার, অবশ্যই কিছু প্রয়োজনীয় তথ্যের প্রয়োজন হবে। এই তথ্যগুলো ছাড়া আপনি অনলাইনে জমির রেকর্ড বের করতে পারবেন না।

অনলাইনে জমির রেকর্ড বের করার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্যের তালিকা:

  • জমির দাগ নম্বর।
  • জমির মালিকের নাম।
  • জমির স্থান।
  • পর্চা নাম।
  • জাতীয় পরিচয়পত্র নাম্বার ও জন্ম তারিখ।

অনলাইনে জমির রেকর্ড যাচাই পদ্ধতি 

নিচের ধাপগুলি অনুসরণ করে সহজে ঘরে বসে অনলাইনে জমির রেকর্ড যাচাই করা যায়। 

জমি রেকর্ড এর পর খতিয়ান তৈরি হয়, তাই মুলত রেকর্ড যাচাই বলতে আদতে খতিয়ান যাচাই বা অনুসন্ধান বোঝায়। এখানে যাচাইয়ের সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি ধাপে ধাপে সচিত্র বর্ণনা করা হলঃ 

প্রথম ধাপ: ই-পর্চা ওয়বসাইটে প্রবেশ 

প্রথমে যে কোন ব্রাউজার থেকে ডিজিটাল ভূমিসবার ই পর্চা ওয়েবসাইট এ প্রবেশ করুন।  লিংক:  https://www.eporcha.gov.bd  

দ্বিতীয় ধাপ: সার্ভে খতিয়ান এ প্রবেশ 

উপরের লিংকে প্রবেশের পর নিচে দেওয়া চিত্রের মতো একটি ওয়েবসাইট পাবেন।  এখানে থেকে “সার্ভে খতিয়ান” এ ক্লিক করুন।

জমির রেকর্ড যাচাই

 তৃতীয় ধাপ: খতিয়ান অনুসন্ধান 

এই পেজে “সার্ভে খতিয়ান অনুসন্ধান” নামে একটি ফর্ম দেখতে পারবেন , যেখানে আপনাকে কিছু তথ্য দিতে হবে। 

জমির রেকর্ড যাচাই

  • বিভাগ এর ঘর থেকে , আপনার বিভাগ বাছাই করবেন , তাহলে জেলার ঘরে আপনার বিভাগের জেলা গুলো দেখাবে। 
  • আপনার জেলা < উপজেলা ক্রমন্বয়ে বাছাই করবেন। 
  • আপনি কি জাতীয় খতিয়ান খুজতেছেন সেটা দিতে হবে।  
  • মৌজা দিতে হবে , মৌজা নম্বর জানা থাকে নম্বর দিয়ে সার্চ দিতে পারেন বা সেখান থেকেও বাছাই করতে পারেন। 
  • “খতিয়ান নম্বর” দিয়ে খুজুন বাটনে ক্লিক করুন অথবা সেখানে দেওয়া লিস্ট থেকে খতিয়ানটি খুঁজে নিন। 

 

তারপর সেই খতিয়ানের উপর দুবার ক্লিক করলে নিচের চিত্রের মতো একটি  পিকচার দেখতে পারবেন। যেখানে খতিয়ান নম্বর , ধরণ ও সম্পর্কিত দাগ নম্বরগুলি দেখতে পারবেন। এখানে থেকে নিচে , “বিস্তারিত” বাটনে ক্লিক করলে , ওই খতিয়ানের সকল দাগ ও মালিক বা দখলদারের নাম দেখতে পারবেন।

জমির রেকর্ড যাচাই
জমির রেকর্ড যাচাই

এর মাধ্যমেই আপনার রেকর্ড যাচাই বা খতিয়ান অনুসন্ধান হয়েছে কিন্তু এটার কোন অফিসিয়াল মূল্য নেই। তাই আপনাকে অনুমোদিত কপি সংগ্রহ করতে হবে। যা আর্টিকেলের পরবর্তী অংশে আলোচনা করা হল। 

চতুর্থ ধাপ: রেকর্ড আবেদন ফরম 

জমির রেকর্ড যাচাই
জমির রেকর্ড যাচাই

আপনার খতিয়ানের মূল কপি পেতে সর্বশেষ পাওয়া পেজটির , “ আবেদন করুন” বাটনে ক্লিক করতে হবে।  তাহলে আপনাকে ” খতিয়ান আবেদন ফর্ম ” নামের একটি অনলাইন ফর্ম এ নিয়ে যাবে।

পঞ্চম ধাপ: রেকর্ড আবেদন ফরম পূরণ 

জমির রেকর্ড যাচাই
জমির রেকর্ড যাচাই

এই ফর্মে আপনার “জাতীয় পরিচয়পত্র নং” জন্মতারিখ ও মোবাইল নম্বর দিয়ে যাচাই করুন বাটনে ক্লিক করতে হবে। সবকিছু ঠিক থাকলে, ফর্মের বাকি অংশ নাম ইংরেজিতে ও ঠিকানা নিজে থেকেই পুরন হয়ে যাবে। 

তারপর , আবেদনের ধরন থেকে আপনি কি ধরনের কপি চান অনলাইন/ সার্টিফাইড কপি কিনা সেটা নির্বাচন করতে হবে। সার্টিফাইড কপি নির্বাচন করলে কিভাবে নিতে চান সেটা উল্লেখ করতে হবে। 

ষষ্ঠ ধাপ:  রেকর্ড আবেদন ফি প্রদান 

জমির রেকর্ড যাচাই
জমির রেকর্ড যাচাই

এই ধাপে খতিয়ান ফি ১০০ টাকা পেইমেন্ট করতে হবে।  এখানে আপনি কোন মাধ্যমে টাকা পরিশোধ করতে চান সেটা নির্বাচন করুন। এখানে বিকাশ, রকেট নগদ ও উপায় এর মাধ্যমে পেমেন্ট করতে পারবেন। 

নিরাপত্তার জন্য, দেওয়া সংখ্যা দুইটির যোগফল দিয়ে , নিচের পরবর্তী ধাপ সবুজ বাটনে ক্লিক করুন। 

 

ধরি আমরা, বিকাশ এ পেমেন্ট নির্বাচন করেছি, তাহলে বিকাশের এই পেমেন্ট গেটওয়ে স্কিন আসবে। এখানে, যে নম্বর থেকে পে করতে চাই, সেই নম্বর দিয়ে Conform করতে হবে, পরের ধাপে বিকাশ আপনার পিন নম্বর চাইবে। পিন দিয়ে Confirm করলে আপনার বিকাশ হতে ১০০টাকা কেটে নিবে, তারপর একটা ডায়ালগ বক্স পাবেন।

জমির রেকর্ড (খতিয়ান) ডাউনলোড

টাকা দেবার পর পাওয়া ডায়ালগ বক্স এ , খতিয়ান সরাসরি ডাউনলোড করার একটি অপশন পাবেন , সেখান থেকে “QR Code” যুক্ত একটি অনলাইন খতিয়ানের পিডিএফ পাবেন। ফরম পুরনের সময়, মেইল দিলে, আপনার মেইলেও একটি খতিয়ান Download এর লিঙ্ক পাবেন।  আর আপনি যদি , সার্টিফাইড কপি অপশন নির্বাচন করেন তাহলে , আপনার কপি ডাকযোগে বা অফিস থেকে নির্দিষ্ট তারিখে সংগ্রহ করতে পারবেন। 

জমির রেকর্ড যাচাই | ধারাবাহিক প্রশ্ন – FAQ

অনলাইনে জমির রেকর্ড যাচাই সম্পর্কিত সর্বাধিক জিজ্ঞেসিত প্রশ্ন সমূহের উত্তর আমাদের পাঠকের সুবিধার্থে দেওয়া হল: 

প্রশ্ন: ভূমি রেকর্ড কী?

উত্তর: ভূমি রেকর্ড হল জমির মালিকানা, অবস্থান, পরিমাণ, শ্রেণী, খাজনা ইত্যাদি তথ্যের একটি সংকলন।

প্রশ্ন: জমির খতিয়ান চেক করার নিয়ম?

জমির খতিয়ান চেক করার নিয়ম:

  • ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট www.eporcha.gov.bd এ যান।
  • “খতিয়ান অনুসন্ধান” ট্যাবে ক্লিক করুন।
  • আপনার সঠিক বিভাগ, জেলা, উপজেলা, এবং মৌজার তথ্য প্রদান করুন।
  • খতিয়ানের ধরন হিসেবে “সি এস”, “বি এস”, “আর এস”, বা “আরডিএস” নির্বাচন করুন।
  • দাগ নম্বর বা খতিয়ান নম্বর লিখে “খুঁজুন” বাটনে ক্লিক করুন।

প্রশ্ন: ভূমি রেকর্ডের উদ্দেশ্য কী?

উত্তর: ভূমি রেকর্ডের উদ্দেশ্য হল ভূমি মালিকানা সম্পর্কিত তথ্য সংরক্ষণ করা এবং ভূমি ব্যবস্থাপনা সহজতর করা।

প্রশ্ন: ভূমি রেকর্ডের কত প্রকারভেদ কি কি?

উত্তর: ভূমি রেকর্ডের বিভিন্ন প্রকারভেদ রয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে:

  • সি এস রেকর্ড: ১৮৮০ হতে ১৯২৩ পর্যন্ত পরিচালিত একটি জরিপের মাধ্যমে তৈরি করা হয়েছিল।
  • আর এস রেকর্ড: ১৯৫৬ হতে ১৯৬২ পর্যন্ত পরিচালিত একটি সংক্ষিপ্ত জরিপ ও রেকর্ড সংশোধনী কার্যক্রমের মাধ্যমে তৈরি করা হয়েছিল।
  • বি এস রেকর্ড: ১৯৬৯ হতে ১৯৯০ পর্যন্ত পরিচালিত একটি জরিপের মাধ্যমে তৈরি করা হয়েছিল।
  • আরডিএস রেকর্ড: ১৯৯৬ হতে ২০০০ পর্যন্ত পরিচালিত একটি জরিপের মাধ্যমে তৈরি করা হয়েছিল।

প্রশ্ন: ভূমি রেকর্ড সংশোধন কী?

উত্তর: ভূমি রেকর্ডে যদি কোনো ভুল থাকে, তাহলে সেটি সংশোধন করা প্রয়োজন। ভূমি রেকর্ড সংশোধনের জন্য ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরে বা অনলাইনে আবেদন করতে হয়।

প্রশ্ন: ভূমি রেকর্ডের ভবিষ্যৎ কী?

উত্তর: ভূমি রেকর্ডের ভবিষ্যত উজ্জ্বল। ভূমি রেকর্ড ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে ভূমি রেকর্ড ব্যবস্থাপনা আরও সহজতর হবে।

প্রশ্ন: জমি সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় যাচাই করার ওয়েবসাইট গুলি কী?

বাংলাদেশের ভূমি সংশ্লিষ্ট সরকারি ওয়েবসাইটগুলি:

  • ভূমি মন্ত্রণালয়: www.minland.gov.bd
  • ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তর: www.eporcha.gov.bd
  • বাংলার ভূমি: www.banglarbhumi.gov.bd
  • সরকারি তথ্য অধিদপ্তর: www.bdlaws.minlaw.gov.bd
  • সরকারি গেজেটের ওয়েবসাইট: www.bdlaws.minlaw.gov.bd/index.php/en/
  • ই-নথি ওয়েবসাইট: www.e-notunbhumi.gov.bd

এই ওয়েবসাইট গুলো থেকে জমি সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় যাচাই করা যেতে পারে।

শেষ কথা | জমির রেকর্ড যাচাই

জমির মালিকানা প্রমাণ করার জন্য জমির রেকর্ড অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই জমির মালিকানা সংক্রান্ত কোনো সমস্যা এড়াতে হলে অবশ্যই জমির রেকর্ড যাচাই করা উচিত।

এই পোস্টে, অনলাইনে জমির রেকর্ড বের করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আশা করি এই তথ্যগুলো আপনার জন্য সহায়ক হবে।

Also Read: নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন

Related Post

খুশির স্ট্যাটাস

200+ স্টাইলিশ খুশির স্ট্যাটাস | হাসি নিয়ে ক্যাপশন

খুশির স্ট্যাটাস | হাসি নিয়ে ক্যাপশন জীবনের সুন্দর খুশির মুহূর্ত আমরা সবাই বাঁধাই করে রাখতে চাই। আর এই খুশির মুহূর্তকে ধরে রাখার সবচেয়ে সহজ উপায়

Read More »
❤love status bangla | ভালোবাসার ছন্দ | রোমান্টিক ছন্দ | প্রেম ছন্দ স্ট্যাটাস❤

স্টাইলিশ ভালোবাসার ছন্দ | রোমান্টিক ছন্দ | Love Status Bangla

❤❤ভালোবাসার ছন্দ | ভালোবাসার ছন্দ রোমান্টিক | ভালোবাসার ছন্দ স্ট্যাটাস❤❤ ভালোবাসা হলো এক অন্যরকম অনুভূতির নাম, যা শুধুমাত্র কাউকে ভালবাসলেই অনুভব করা যায়। আমরা বিভিন্নভাবে

Read More »
মন খারাপের স্ট্যাটাস

মন খারাপের স্ট্যাটাস, উক্তি, ছন্দ, ক্যাপশন, কিছু কথা ও লেখা

মন খারাপের স্ট্যাটাস মন খারাপ – এই কষ্টের অনুভূতি কার না হয়? সবারই কখনো না কখনো সবারই মন খারাপ হয়। জীবনের ছোটোখাটো অঘটন থেকে শুরু

Read More »
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে বলা হয় বিশ্বকবি। তিনি ছিলেন একজন বিচক্ষণ ও গুনী লেখক। প্রেম চিরন্তন এবং সত্য। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাঙালীর মনে প্রেমের

Read More »
ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা

ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা | Breakup Status Bangla

ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা আপনি কি আপনার প্রিয়জনের সাথে সম্পর্ক থেকে বের হয়ে এসেছেন? আর সেটা আপনি কোন ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা মাধ্যমে বোঝাতে চাচ্ছেন। তাহলে আপনি

Read More »

Leave a Comment

Table of Contents