Dreamy Media BD

তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায়

তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায়

তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায়

আমাদের ত্বকে থাকা সেবাসিয়াস গ্রন্থি থেকে অতিরিক্ত সিবাম উৎপাদনের জন্য ত্বক তৈলাক্ত হয়ে থাকে। সিবাম হচ্ছে এক ধরনের চর্বি দিয়ে তৈরি একটি তৈলাক্ত পদার্থ যার কাজ ত্বককে রক্ষা এবং ময়েশ্চারাইজ করা এছাড়াও আপনার চুলকে চকচকে এবং স্বাস্থ্যকর রাখা।তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায় , তবে অত্যাধিক সিবাম ত্বকের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ছিদ্রে আটকে জমে যেতে পারে এবং এতে ব্রণ হতে পারে। সাধারণত জেনেটিক কারণ, হরমোনের পরিবর্তন, এমনকি স্ট্রেস বা মানসিক চাপে সিবামের উৎপাদন বাড়াতে পারে। তৈলাক্ত ত্বকে এগুলো আরো দ্বিগুণ বেড়ে যায়। 

তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন করা জটিল। স্বাভাবিক ত্বকের তুলনায় তৈলাক্ত ত্বকে যেকোনো ধরনের সমস্যা বেশি দেখা যায়। ব্রণ হওয়ার সম্ভাবনা থেকে শুরু করে ত্বকের যে কোন সমস্যা তৈলাক্ত ত্বকে বেশি দেখা দেয় এর কারণ হচ্ছে তৈলাক্ত ত্বকে খুব সহজে ধুলাবালি ও ময়লা আটকে থাকে। 

এই সমস্যা সমাধানে অনেকেই বিভিন্ন ওষুধ বা ব্যয়বহুল ক্রিম, প্যাক এবং নানান কঠিন পদ্ধতিগুলো ব্যবহার করে। আজকের আর্টিকেলে আমরা জানবো কিভাবে খুব সহজেই তৈলাক্ত ত্বক থেকে ব্রণ দূর করা যায়। তাই চলুন দেরি না করে আর্টিকেলটি শুরু করা যাক।

তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায়

তৈলাক্ত ত্বক কী?

তৈলাক্ত ত্বক সাধারণত পুরু এবং বড় ছিদ্রের হয়ে থাকে। শুষ্ক ও স্বাভাবিক ত্বকের চেয়ে তৈলাক্ত ত্বকে বলিরেখা পরে দেখা যায়। তৈলাক্ত ত্বকে কফযুক্ত ত্বকও বলা যেতে পারে।  তৈলাক্ত ত্বকে অতিরিক্ত তেলের কারণে  দ্রুত ময়লা এবং ধুলাবালি জমে যায় এর ফলে ত্বকে থাকা ছিদ্রে ধুলাবালি ও ময়লা আটকে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। তাই এই ত্বকে ব্রণ, ,হোয়াইট হেডস ব্ল্যাক হেডস বেশি হয়। ত্বকের এই প্রকৃতির কারনে তৈলাক্ত ত্বকের বিশেষ যত্নের প্রয়োজন। সাধারণত একজন ব্যক্তির ত্বক তৈলাক্ত, শুষ্ক বা জন্মগতভাবে হয়ে থাকে‌ এবং এটি একই থাকে। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে যেমন, মহিলাদের হরমোনের পরিবর্তন বা অনুপযুক্ত খাদ্যাভ্যাসের কারণে স্বাভাবিক ত্বকও তৈলাক্ত ত্বকে রূপান্তরিত  হতে পারে।

তৈলাক্ত ত্বকের কারণ

তৈলাক্ত ত্বক হওয়ার বেশ কিছু কারণ রয়েছে। চলুন আমরা বিস্তারিত জেনে নেই।

১)তৈলাক্ত ত্বক জন্মগত কারণে হতে পারে ।

২)আবহাওয়ার পরিবর্তনের কারণে অনেকের ত্বকও তৈলাক্ত হতে পারে।

৩) আমাদের শরীরে হরমোনের পরিবর্তন মূলত তেল উৎপাদনের জন্য দায়ী। বিশেষ করে মহিলাদের মধ্যে এন্ড্রোজেন নামক হরমোন সারা জীবন কমতে থাকে এবংবাড়তে থাকে। এটা সাধারণত মেনোপজের আগে বা গর্ভাবস্থায় হয়ে থাকে । এর ফলে সেবেসিয়াস গ্রন্থিগুলিকে তেল উৎপাদন করতে উৎসাহিত হয়।  শরীরে হরমোনের ভারসাম্যহীনতা তৈলাক্ত ত্বকের একটি বড় কারণ।পুরুষদের ক্ষেত্রে টেস্টোস্টেরন হরমোন যখন খুব সক্রিয় হয়ে ওঠে তখন অতিরিক্ত তেল তৈরি হয়। যার ফলে তৈলাক্ত ত্বকের সৃষ্টি হয়।

৪) অতিরিক্ত চাপের জীবনযাপন করার ফলে চাপের সময় আমাদের ত্বকে অতিরিক্ত অ্যান্ড্রোজেন হরমোন তৈরি হয় যা তৈলাক্ত ত্বকের একটি প্রধান কারণ।  অনেক সময় অস্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রা তৈলাক্ত ত্বকের অন্যতম কারন।

৫) বাজারে পাওয়া হরমোনজনিত গর্ভনিরোধক ওষুধ এবং হরমোন প্রতিস্থাপনের ওষুধ ত্বক থেকে তেল উৎপাদন বাড়িয়ে দেয়।এর ফলে ডিহাইড্রেশন হতে পারে। ওষুধের প্রভাবে তেলের উৎপাদন বেড়ে যায় এতে ডিহাইড্রেশনের সময়  ত্বকের আর্দ্রতার অভাব থাকে না তাই ত্বক নিজেই আর্দ্রতা তৈরি করে যা তেলের আকারে তৈরি হয়। 

৬)বয়ঃসন্ধিকালে প্রতিটি  ছেলে-মেয়েদের মধ্যে হঠাৎ করে হরমোন বেড়ে যায় এবং কমে যায় এর ফলে অতিরিক্ত তেল তৈরি হয়।  এ সময় এন্ড্রোজেন হরমোন নিঃসৃত হয় যা তৈলাক্ত ত্বক ও চুলের একটি বড় কারণ হয়ে দাঁড়ায়।  এই সমস্যা সাধারণত ১৮-২১ বছর পর্যন্ত স্থায়ী হয় আবার কারো কারো ক্ষেত্রে এই সমস্যা তাদের প্রাপ্তবয়স্ক পর্যায় পর্যন্ত স্থায়ী হয়ে থাকে।  এমন অবস্থায় তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন নেওয়া খুবই জরুরি।

তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায়

১) লেবু ও মধু

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে লেবু একটি কার্যকরী উপাদান। লেবুতে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিড তৈলাক্ত ত্বকের তেল দূর করার সাথে সাথে ত্বকে‌ থাকা ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধ করে এবং ত্বককে ব্রণ হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করে । আর মধুতে আছে অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল উপাদান যা তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ হতে বাধা প্রদান করে।একইসাথে মধু ত্বকের ময়েশ্চারাইজারের স্তর ঠিক রাখে এবং ত্বক আরও উজ্জ্বল করে তোলে। 

মধু ও লেবু ব্যবহার করে প্যাকটি তৈরির জন্য একটি তাজা লেবু থেকে এক টেবিল চা চামচ রস নিয়ে সাথে সমপরিমাণ মধু  একটি পাত্রে মেশান। এই দুই উপাদান একসাথে মিশে  গাঢ় লিকুইড আকার ধারণ করবে। এবার এই পেস্টটি আপনার ত্বকে লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট রেখে দিন। ১৫-২০ মিনিট রাখার পর ঠান্ডা পানি দিয়ে আপনার ত্বক ধুয়ে ফেলুন।এই প্যাকটি ব্যবহারের ফলে পর আপনার ত্বকে ব্রণ কমবে সেইসাথে ব্রণের দাগ হালকা হতে শুরু করবে। এই পেস্টটি ব্যবহারের পর আপনার ত্বকে উজ্জ্বলতা লক্ষ্য করবেন। তৈলাক্ত ত্বকের ব্রণ দূর করতে এই প্যাকটি সপ্তাহে অত্যন্ত ২ বার ব্যবহার করুন।

২)দই ও বেসন

দই তে থাকা উপাদান আমাদের ত্বক নরম ও নমনীয় রাখতে সাহায্য করে। আর বেসন ত্বকের অতিরিক্ত তেল শুষে নিয়ে ত্বকের উজ্জলতা ধরে রাখে পারে। দুই ও বেসন একত্রে হয়ে তৈলাক্ত ত্বকের ব্রণ সারাতে বেশ কার্যকর। 

দুই ও বেসন ব্যবহার করে প্যাকটি তৈরি করার জন্য দুই টেবিল চামচ দই ও  দুই টেবিলচা চামচ বেসন নিয়ে একটি পাত্রে ভালোভাবে মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন। পেস্টটি হলে শেষের সাথে  দুই ফোটা মধু ও এক চিমটি হলুদ ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এরপর পেস্টটি আপনার মুখে ও গলায় ভালোভাবে লাগিয়ে নিন এবং শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।২০-২৫ মিনিট পর এটি শুকিয়ে গেলে হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে প্রথমে প্যাকটি ত্বক থেকে লুজ করে নিন। এবার হালকা ঘষে ঘষে প্যাকটি মুখ থেকে ঝরিয়ে ফেলুন। এভাবে ত্বকের মৃত কোষ উঠে আসার সাথে ত্বকের অতিরিক্ত তেল শুষে আসবে। এবার ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ দিয়ে ফেলুন। এই প্যাকটি সপ্তাহে অত্যন্ত ২ বার ব্যবহার করুন।

তৈলাক্ত ত্বকের ব্রন দূর করার ঘরোয়া উপায়

অনেকেই তৈলাক্ত ত্বক ও তৈলাক্ত ত্বকের ব্রণ নিয়ে দুশ্চিন্তায় ভুগছেন। আপনি চাইলে খুব সহজে কিছু ঘরোয়া উপায় এর মাধ্যমে তৈলাক্ত ত্বকের সমস্যা ও তৈলাক্ত ত্বকের ব্রন দূর করতে পারবেন।

 ১)ওটমিল প্রতিকার

১ চা চামচা ওটমিল, মধু এবং দই মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন এবং এটি মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ওটমিল ব্যবহার করে আরো একটি পেস্ট তৈরি করতে পারেন এর জন্য ওটমিল এবং অ্যালোভেরা সমান পরিমাণে নিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্টটি দিয়ে আপনার ত্বকে হালকা হাতে ম্যাসাজ করুন এবং ১৫-২০ মিনিটের জন্য রেখে দিন, তারপর পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

২)টমেটো 

টমেটোতে আছে তেল শোষণকারী অ্যাসিড যা ত্বক থেকে অতিরিক্ত তেল শুষে নিতে সাহায্য করে। এর জন্য টমেটোর টুকরো দিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করুন যতক্ষণ না ত্বক টমেটোর রস শোষণ করে। এবং ১৫  মিনিট রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৩)শসা 

রাতে ঘুমানোর আগে এক টুকরো শসা দিয়ে ত্বকে ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন। এবং সকালে কুসুম গরম পানি দিয়ে ত্বক ধুয়ে ফেলুন।

৪)হলুদ

হলুদ দিয়ে একটি পেজ তৈরি করে ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন এর জন্য এক-চতুর্থাংশ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো, আধা চা চামচ লেবুর রস এবং এক চা চামচ মধু মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্টটি মুখে লাগিয়ে শুকাতে দিন এবং ১৫-২০ মিনিট রাখুন। শুকিয়ে গেলে হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

৫)চন্দন

 চন্দন বেসন আদা ইত্যাদির সংমিশ্রণে ঘরে একটি পেস্ট তৈরি করে ব্যবহার করতে পারেন এর জন্য এক চা চামচ চন্দন গুঁড়া, দুই চা চামচ বেসন, আধা চা চামচ হলুদ গুঁড়া, দুই ফোঁটা গোলাপ তেল, দুই ফোঁটা ল্যাভেন্ডার তেল এবং এক চা চামচ দুধ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন।  এই পেস্টটি মুখে লাগান এবং শুকিয়ে গেলে হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৬)লেবু 

লেবু দিয়ে পেস্ট তৈরি করার জন্য এক চা চামচ লেবুর রস, আধা চা চামচ মধু এবং এক চা চামচ দুধ মিশিয়ে নিন। এই পেস্টটি মুখে লাগিয়ে  ১০-১৫ মিনিটের জন্য রেখে দিন, তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৭) সবুজ চা  

 গ্রিন টি পান করার পাশাপাশি মুখে লাগালেও বেশ উপকার পাওয়া যায়। এতে রয়েছে পলিফোলিক এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্য যা আমাদের ত্বক সংক্রান্ত রোগ থেকে রক্ষা করে।  দুই চামচ গ্রিন টি, এক চামচ লেবুর রস, এক চামচ চালের আটা নিয়ে পেস্ট তৈরি করুন।২০-২৫মিনিট মুখে লাগিয়ে রাখুন।  এর পর তাজা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

সবশেষে 

বয়ঃসন্ধিক কালে ব্রণ একটি মারাত্মক সমস্যা। সেই সমস্যা দ্বিগুণ আকারে ধারণ করে যখন ত্বক তৈলাক্ত হয়। স্বাভাবিক ত্বকে ব্রণ দূর করাটা যতটা সহজ তৈলাক্ত ত্বকে ততটা। আজ আমরা এই আর্টিকেলে কিভাবে খুব সহজেই তৈলাক্ত ত্বক থেকে ব্রণ দূর করা যায় তার কয়েকটি মাধ্যম তুলে ধরেছি। আশা করি আর্টিকেলটি থেকে আপনারা কিছুটা হলেও উপকৃত হয়েছেন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

Also Read :  গলা ব্যাথার ঔষধের নাম

Related Post

খুশির স্ট্যাটাস

200+ স্টাইলিশ খুশির স্ট্যাটাস | হাসি নিয়ে ক্যাপশন

খুশির স্ট্যাটাস | হাসি নিয়ে ক্যাপশন জীবনের সুন্দর খুশির মুহূর্ত আমরা সবাই বাঁধাই করে রাখতে চাই। আর এই খুশির মুহূর্তকে ধরে রাখার সবচেয়ে সহজ উপায়

Read More »
❤love status bangla | ভালোবাসার ছন্দ | রোমান্টিক ছন্দ | প্রেম ছন্দ স্ট্যাটাস❤

স্টাইলিশ ভালোবাসার ছন্দ | রোমান্টিক ছন্দ | Love Status Bangla

❤❤ভালোবাসার ছন্দ | ভালোবাসার ছন্দ রোমান্টিক | ভালোবাসার ছন্দ স্ট্যাটাস❤❤ ভালোবাসা হলো এক অন্যরকম অনুভূতির নাম, যা শুধুমাত্র কাউকে ভালবাসলেই অনুভব করা যায়। আমরা বিভিন্নভাবে

Read More »
মন খারাপের স্ট্যাটাস

মন খারাপের স্ট্যাটাস, উক্তি, ছন্দ, ক্যাপশন, কিছু কথা ও লেখা

মন খারাপের স্ট্যাটাস মন খারাপ – এই কষ্টের অনুভূতি কার না হয়? সবারই কখনো না কখনো সবারই মন খারাপ হয়। জীবনের ছোটোখাটো অঘটন থেকে শুরু

Read More »
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে বলা হয় বিশ্বকবি। তিনি ছিলেন একজন বিচক্ষণ ও গুনী লেখক। প্রেম চিরন্তন এবং সত্য। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাঙালীর মনে প্রেমের

Read More »
ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা

ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা | Breakup Status Bangla

ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা আপনি কি আপনার প্রিয়জনের সাথে সম্পর্ক থেকে বের হয়ে এসেছেন? আর সেটা আপনি কোন ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা মাধ্যমে বোঝাতে চাচ্ছেন। তাহলে আপনি

Read More »

Leave a Comment

Table of Contents