Dreamy Media BD

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ এর সকল তথ্য

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ(Sir Salimullah Medical College) এর যাত্রা শুরু ঢাকা মেডিকেল কলেজের(১৯৪৬ সালের) অনেক আগেই ১৮৭৫ সালে।  কিন্তু প্রথমে এটি পূর্ণাঙ্গ মেডিকেল কলেজ ছিল না , এর নাম ছিল ঢাকা মেডিকেল স্কুল।   ১৯৬২ সালে এটি  মেডিকেল স্কুল থেকে মেডিকেল কলেজে রূপান্তরিত।  তখন এর নাম পরিবর্তন করে, মিটফোর্ড মেডিকেল কলেজ নামকরণ করা হয়।

নবাব স্যার সলিমুল্লাহ, ১৯০৩ এখানে প্রসূতি ও মহিলা বিভাগ স্থাপনের জন্য অনেক অর্থ দান করেন।  নবাবকে সম্মানিত করতে ১৯৬৩ সালে এর নাম পরিবর্তন করে , স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ  করা হয়। 

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস (Sir Salimullah Medical College History)  

ঢাকার তকালীন কালেক্টর রবার্ট মিটফোর্ড ১৮২০ সালে এটি প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেন এবং মৃত্যুর সময় প্রচুর সম্পত্তি দান করেন।  তার মৃত্যুর পর  লর্ড ডালহৌসি এর কাজ সম্পন্ন করেন।   ১৮৭৫ সালে মেডিকেল স্কুল প্রতিঠার পর থেকে , একাধিকবার নাম পরিবর্তন হয়।  ১৯৬৩ সালে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ  নাম পেলেও এটি পূর্ণাজ্ঞ মেডিকেল কলেজ হয় , ১৯৭২ সালে।  এমবিবিএস কোর্সের প্রথম ছাত্র ভর্তি  শুরু হয় ১৯৭৩ সালে। স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ পুরান ঢাকার ,বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে, বাবুবাজার মিটফোর্ড রোডে অবস্থিত। 

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ এর সকল তথ্য (Sir Salimullah Medical College All Information) 

 

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ 

এসএসএমসি (SSMC)

প্রতিষ্ঠাঃ ১৮৮৫ সাল

প্রতিষ্ঠাতাব্রিটিশ ভারত সরকার 
ধরনসরকারি মেডিকেল কলেজ
প্রাতিষ্ঠানিক অধিভুক্তিঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়
পরিচালকব্রিগেডিয়ার জেনারেল কাজি মোঃ রসিদ-উন-নবি
শিক্ষার্থী (সংখ্যা)১৫০০+ (প্রতি বছর ২৩০ জন ভর্তির সুযোগ পান)
ইন্টার্ন (সংখ্যা)২৫০ জন 
কর্মকর্তা ও কর্মচারী২০০ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারী
স্নাতক কোর্স ২ টি, এমবিবিএস, বিডিএস
স্নাতকোত্তর কোর্স ২৫ টি 
ঠিকানা মিটফোর্ড রোড, পুরান ঢাকা, ঢাকা , ঢাকা , বাংলাদেশ
যোগাযোগ নম্বর02-57319935
হট লাইন+8801322465805
ইমেইল[email protected]
ওয়েবসাইটhttps://ssmcmh.gov.bd/ 

আসন সংখ্যা 

মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস কোর্সে ২৩০ জন ছাত্র ছাত্রী ভর্তি হয়। এর মধ্যে ১৯০ জন সাধারণ ও ৪০ জন কোটাধারী।

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ভর্তির যোগ্যতা

বাংলাদেশের যেকোনো শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি ও এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় পদার্থ, রসায়ন ও জীববিজ্ঞান সহ উত্তীর্ণ হলে বাংলাদেশে মেডিকেল কলেজে গুলোতে ভর্তির জন্য আবেদন করা যায়। সারাদেশে মম্মেলিত পরীক্ষা হয়, তার মধ্যে নিজ নিজ পছন্দ বাচাই করতে হয়, সাধারণত স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ এ ভর্তি হবার জন্য জাতীয় মেধা তালিকায় সেরা ১০০০ এর মধ্যে থাকতে হয়। 

 ২০২৩ সালের জন্য, এসএসসি ও এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় মোট জিপিএ ৯.০ থাকতে হবে। পার্বত্য জেলার প্রার্থী বা ক্ষুদ্র জাতিসত্তা থেকে আগত প্রার্থীদের ক্ষেত্রে এই জিপিএ ৮.০। তবে কোন পরীক্ষায় গ্রেড পয়েন্ট ৩.৫ এর চেয়ে কম হলে শিক্ষার্থী আবেদনের অযোগ্য বলে বিবেচিত হবে। তাছাড়া এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় জীববিজ্ঞান বিষয়ে কমপক্ষে গ্রেড পয়েন্ট ৩.৫ থাকতে হবে।

বিদেশ থেকে পরীক্ষা :

বিদেশে অবস্থানরত বাংলাদেশি নাগরিক এবং ‘ও’ লেভেল ’এ’ লেভেল পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা মেডিকেলে ভর্তি হতে আগ্রহী হলে, তারা অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র গুলো হলো এসএসসি এবং এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষার সার্টিফিকেটের সত্যায়িত কপি, ‘ও’ লেভেল বা ‘এ’ লেভেল পরীক্ষার সার্টিফিকেটের সত্যায়িত কপি, পাসপোর্টের সত্যায়িত কপি এবং ব্যাংক ড্রাফট বা পে-অর্ডার। আবেদনপত্র স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা যাবে। আবেদনপত্র পূরণ করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংযুক্ত করে ব্যাংকে জমা দিতে হবে। বিদেশি নাগরিকদের জন্য আবেদন ফি ২০০০ টাকা এবং ‘ও’ লেভেল বা ‘এ’ লেভেল পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের জন্য আবেদন ফি ২০০০ টাকা।

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে ভর্তি পরীক্ষা

একটি আবেদনের মাধ্যমে সকল মেডিকেল কলেজে আবেদন করা যায়। আবেদন এবং প্রবেশপত্র গ্রহণের পরে শিক্ষার্থীদের একটি পরীক্ষায় (এমসিকিউ) অংশগ্রহণ করতে হয়। ১০০ নম্বরের এই পরীক্ষার সময়সীমা ১ ঘন্টা। আর এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ১০০ নম্বর। পরীক্ষায় জীববিজ্ঞান থেকে ৩০, পদার্থবিদ্যা থেকে ২০, রসায়ন থেকে ২৫, ইংরেজি থেকে ১৫ এবং সাধারণ জ্ঞান, ইতিহাস ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক বিষয় থেকে ১০টি প্রশ্ন থাকে।

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে ভর্তির খরচ

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে একটি সরকারি মেডিকেল কলেজ। তাই এখানে ভর্তির জন্য বেশি অর্থ প্রদানের প্রয়োজন নেই। শিক্ষার্থীদের শুধুমাত্র ভর্তি ফি হিসেবে ১০ হাজার টাকা দিতে হয়। এই ভর্তি ফি দিয়ে মেডিকেল কলেজ শিক্ষার্থীদের জন্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন সরঞ্জাম ও সুযোগ-সুবিধা প্রদান করা হয়।

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজেে পড়ার খরচ

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে পড়াশোনার জন্য শিক্ষার্থীদের অন্যান্য খরচ বহন করতে হয়। যেমন, থাকার খরচ, খাওয়ার খরচ, বইপত্রের খরচ, এবং অন্যান্য ব্যক্তিগত খরচ। এই খরচের পরিমাণ শিক্ষার্থীর পড়াশোনার মেয়াদ, থাকার ব্যবস্থা, এবং অন্যান্য ব্যক্তিগত পছন্দের উপর নির্ভর করে।

সাধারণভাবে, পড়াশোনার জন্য শিক্ষার্থীদের প্রতি বছর ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা খরচ হয়। এই খরচের মধ্যে থাকার খরচ, খাওয়ার খরচ, বইপত্রের খরচ, এবং অন্যান্য ব্যক্তিগত খরচ অন্তর্ভুক্ত থাকে।

প্রথম বর্ষের জন্য একটি মানব কঙ্কাল কিনতে হয়, জা কিনতে প্রায় ৫০ হাজার থেকে ১ লক্ষ টাকা লাগতে পারে। 

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের অনুষদ ও বিভাগ

চিকিৎসা অনুষদ 

  • অভ্যন্তরীণ চিকিৎসা বিভাগ
  • শিশুরোগ বিভাগ
  • চর্ম ও যৌনরোগ বিভাগ
  • চক্ষুবিজ্ঞান বিভাগ
  • সার্জারি বিভাগ
  • অর্থোপেডিক বিভাগ
  • মেডিসিন বিভাগ
  • স্ত্রীরোগ ও প্রসূতিবিদ্যা বিভাগ
  • শিশুরোগ বিভাগ
  • নিউরোলজি বিভাগ
  • কার্ডিওলজি বিভাগ
  • ইউরোলজি বিভাগ
  • গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজি বিভাগ
  • রেডিওলজি বিভাগ
  • প্যাথলজি বিভাগ
  • ফার্মাকোলোজি বিভাগ
  • প্যাথোফিজিওলজি বিভাগ
  • মাইক্রোবায়োলজি বিভাগ
  • কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগ
  • মনোরোগ বিভাগ
  • এনাটমি বিভাগ
  • ফিজিওলজি বিভাগ
  • প্যাথলজি বিভাগ
  • ফার্মাকোলজি বিভাগ
  • মাইক্রোবায়োলজি বিভাগ
  • কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগ
  • মনোরোগ বিভাগ

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের কোর্স ও বিষয়

কোর্স ও বিষয়গুলি নিম্নরূপ:

কোর্স (স্নাতক)

  • ৫ বছর মেয়াদি এমবিবিএস কোর্স 
  • ৫ বছর মেয়াদি বিডিএস কোর্স 

কোর্স (স্নাতকোত্তর)

  • এমডি (ইন্টার্নাল মেডিসিন);
  • এমডি (নিউরো মেডিসিন);
  • এমডি (শিশুচিকিত্সা);
  • এমডি (নেফ্রোলজি)
  • এমডি (হৃদদ্বিজ্ঞান);
  • এমডি (রেডিওলজি এবং ইমেজিং);
  • এমডি (প্যাথোলজি);
  • এমডি (প্রাণরসায়ন);
  • এমএস (জেনারেল সার্জারি)
  • এমএস (ওফথমোলজি);
  • এমএস (নাক, কান, গলা);
  • এমএস (ইউরোলজি);
  • এমএস (গাইনী এবং অবস);
  • এমফিল (অ্যানাটমি);
  • এমফিল (শরীরবিদ্যা);
  • এমফিল (ফার্মাকোলজি);
  • এমফিল (অণুজীববিজ্ঞান);
  • এমপিএইচ (কমিউনিটি মেডিসিন);
  • ডিপ্লোমা (কার্ডিওলজি);
  • ডিপ্লোমা (গাইনী এবং অবস);
  • ডিপ্লোমা (অর্থোপেডিক সার্জারি)
  • ডিপ্লোমা (এনেস্থেসিওলজি)
  • ডিপ্লোমা (ফরেনসিক মেডিসিন)
  • ডিপ্লোমা (চর্ম ও যৌন রোগ)

বিষয় (স্নাতক – এমবিবিএস )

প্রথম বর্ষ

  • অ্যানাটমি
  • ফিজিওলজি
  • বায়োকেমিস্ট্রি
  • প্যাথলজি
  • মাইক্রোবায়োলজি

দ্বিতীয় বর্ষ

  • ফার্মাকোলজি
  • কমিউনিটি মেডিসিন
  • ফরেনসিক মেডিসিন
  • সার্জারি
  • ওষুধবিজ্ঞান

তৃতীয় বর্ষ

  • মেডিসিন
  • সার্জারি
  • শিশুরোগ
  • স্ত্রীরোগ ও প্রসূতিবিদ্যা

চতুর্থ বর্ষ

  • মেডিসিন
  • সার্জারি
  • শিশুরোগ
  • স্ত্রীরোগ ও প্রসূতিবিদ্যা

পঞ্চম বর্ষ

  • ইন্টার্নশিপ

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের আবাসিক হল

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে ৭ টি  আবাসিক হল রয়েছে। এগুলি হল:

ছাত্রদের জন্য:

  • স্যার সলিমুল্লাহ হল
  • হাজী মুহম্মদ মহসিন হল
  • স্যার আশুতোষ হল
  • স্যার আহমদ হল

ছাত্রীদের জন্য:

  • খান সাহেব ওয়াজিদ আলী চৌধুরী হল
  • বেগম রোকেয়া হল
  • মমতাজ মহল হল

প্রতিটি হলের নিজস্ব একটি ক্যান্টিন, লাইব্রেরি, জিম এবং খেলার মাঠ রয়েছে।

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের লাইব্রেরী

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের লাইব্রেরী হল বাংলাদেশের অন্যতম প্রাচীন এবং বৃহত্তম চিকিৎসা লাইব্রেরী। এটি ১৮৭৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল এবং এর সংগ্রহে অনেক বই, জার্নাল, এবং অন্যান্য চিকিৎসা সামগ্রী রয়েছে।

 স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের বিশিষ্ট প্রাক্তনী 

  • বিনয় বসু: বিট্রিশ বিরোধী আন্দোলনের মহানায়ক।  ১৯৩০ সালে, মেডিকেল কলেজের ভিতরে দুজন ইংরেজ পুলিশকে গুলি করে হত্যা করেন।
  • আবুল বাশার মুহাম্মদ খুরশীদ আলম: স্বাস্থ অধিদপ্তরের বর্তমান মহাপরিচালক।  
  • রাখাল চন্দ্র দাস: মুক্তিযুদ্ধে প্রাণ হারানো এক বিশিষ্ট চিকিৎসক।  
  • এইচ বি এম ইকবাল: সংসদীয় আসন ঢাকা-১০ থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য ও বিশিষ্ট আওয়ামীলীগ পন্থী রাজনীতিবিদ। 

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের নানা আন্দোলনে অবদান 

ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে অবদান 

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ থেকে অনেক শিক্ষার্থীরা বিপ্লব ব্রিটিশ বিরোধী ও স্বাধীনতা সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। ১৯৩০ সালে বিপ্লবী বিনয় বসু এই কলেজ এর ছাত্র থাকা অবস্থায় ব্রিটিশ পুলিশ কর্মকর্তা লোম্যান ও হডসনকে গুলি করে হত্যা করেন। এছাড়াও, এই কলেজ থেকে আরও অনেক শিক্ষার্থী ১৯৪৭ সালের দেশভাগের পরবর্তী সংঘর্ষে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে অবদান

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে এই কলেজ থেকে শিক্ষার্থীরা সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেছিলেন।রাখাল চন্দ্র দাস ও আতিকুর রহমান স্বাধীনতা সংগ্রামে প্রান হারানো দুইজন চিকিৎসক এই কলেজের শিক্ষর্থী ছিলেন।  

এছাড়াও, ১৯৮২ সালের সামরিক অভ্যুত্থান, ১৯৯০ সালে গণতন্ত্র আন্দোলন এই কলেজ এর শিক্ষার্থীরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন।

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ বাংলাদেশের ইতিহাসে একটি গৌরবময় প্রতিষ্ঠান। এই কলেজ থেকে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা তাদের মেধা, কর্ম ও সাফল্যের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন।

তথ্যসূত্রঃ 

Also Read Dhaka Medical College 

Related Post

খুশির স্ট্যাটাস

200+ স্টাইলিশ খুশির স্ট্যাটাস | হাসি নিয়ে ক্যাপশন

খুশির স্ট্যাটাস | হাসি নিয়ে ক্যাপশন জীবনের সুন্দর খুশির মুহূর্ত আমরা সবাই বাঁধাই করে রাখতে চাই। আর এই খুশির মুহূর্তকে ধরে রাখার সবচেয়ে সহজ উপায়

Read More »
❤love status bangla | ভালোবাসার ছন্দ | রোমান্টিক ছন্দ | প্রেম ছন্দ স্ট্যাটাস❤

স্টাইলিশ ভালোবাসার ছন্দ | রোমান্টিক ছন্দ | Love Status Bangla

❤❤ভালোবাসার ছন্দ | ভালোবাসার ছন্দ রোমান্টিক | ভালোবাসার ছন্দ স্ট্যাটাস❤❤ ভালোবাসা হলো এক অন্যরকম অনুভূতির নাম, যা শুধুমাত্র কাউকে ভালবাসলেই অনুভব করা যায়। আমরা বিভিন্নভাবে

Read More »
মন খারাপের স্ট্যাটাস

মন খারাপের স্ট্যাটাস, উক্তি, ছন্দ, ক্যাপশন, কিছু কথা ও লেখা

মন খারাপের স্ট্যাটাস মন খারাপ – এই কষ্টের অনুভূতি কার না হয়? সবারই কখনো না কখনো সবারই মন খারাপ হয়। জীবনের ছোটোখাটো অঘটন থেকে শুরু

Read More »
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের উক্তি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে বলা হয় বিশ্বকবি। তিনি ছিলেন একজন বিচক্ষণ ও গুনী লেখক। প্রেম চিরন্তন এবং সত্য। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাঙালীর মনে প্রেমের

Read More »
ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা

ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা | Breakup Status Bangla

ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা আপনি কি আপনার প্রিয়জনের সাথে সম্পর্ক থেকে বের হয়ে এসেছেন? আর সেটা আপনি কোন ব্রেকআপ স্ট্যাটাস বাংলা মাধ্যমে বোঝাতে চাচ্ছেন। তাহলে আপনি

Read More »

Leave a Comment

Table of Contents